মিশরে ‘ফারাওকন্যার’ সমাধির সন্ধান

মিশরে ৩ হাজার ৭০০ বছরের পুরোনো একটি সমাধি কক্ষ পাওয়া গেছে।

ধারণা করা হচ্ছে, এটি এক ফারাওয়ের মেয়ের সমাধি। সম্প্রতি পাওয়া একটি পিরামিডের ধ্বংসাবশেষের কাছে এই সমাধি আবিষ্কার করেন প্রত্নতত্ত্ববিদরা।

মিশরীয় পুরাতত্ত্ব বিভাগ জানায়, সমাধি কক্ষের অবস্থান কায়রোর দক্ষিণে দাহশুরের রাজকীয় সমাধি শহরে। এতে একটি হায়ারোগ্লিফ খচিত কাঠের বাক্সে শামিয়ানায় জড়ানো চারটি বয়াম রয়েছে। বয়ামগুলোয় আছে মানুষের অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ, যা সম্ভবত এক রাজকন্যার। ওই সমাধির ১ হাজার ৯৭০ ফুট দূরেই রাজা এমনিকামাওয়ের সমাধি।

গত মাসে ওই ধ্বংসাবশেষে পাওয়া যায় ১০ লাইনের হায়ারোগ্লিফ সম্বলিত একটি হস্তশিল্প। এতে খোদাই করা ছিল ফারাও এমনিকামাওয়ের নাম। পাশাপাশি এতে একটি মানবাকৃতির শবাধারের ধ্বংসাবশেষও পাওয়া যায়।

৪ হাজার ৬০০ বছর আগে এই দাহশুরেই চতুর্থ রাজবংশের রাজা স্নেফেরু প্রাচীন মিশরের প্রথম মসৃণ পার্শ্বসম্বলিত ৩৪১ ফুট উঁচু ‘লাল পিরামিড’ নির্মাণ করেন। এ ছাড়া তিনি এর একটি প্রাথমিক সংস্করণ- ১০৫ মিটার উঁচু বক্র পিরামিডও নির্মাণ করেন। এর ঢাল মাঝপথে গিয়ে ৫৪ ডিগ্রি থেকে ৪৩ ডিগ্রিতে রূপ নেয়।

পরে তার ছেলে খুফুর আমলে নির্মিত হয় ১৩৮ মিটার উঁচু গিজার মহাপিরামিড- প্রাচীন মিশরের এক বিস্ময়।

You Might Also Like