মিছিল করে পুলিশের কাছে ক্ষমা চাইলেন ছাত্রদল সভাপতি!

হরতাল পালনে নেতাকর্মী বেষ্টিত হয়ে সকালে বেশ উৎসাহ উদ্দীপনা নিয়েই নাসিমন ভবনে হাজির হন নগর ছাত্রদলের সভাপতি গাজী মোহাম্মদ সিরাজ উল্লাহ। নেতার সান্নিধ্য পেয়ে হঠাৎই ‘আগ্রাসী’ হয়ে উঠে ছাত্রদল কর্মীরা। ইট পাটকেল ছুড়তে থাকে পুলিশকে লক্ষ্য করে। কিন্তু পুলিশের এক ধাওয়াতেই শেষ হয়ে যায় ছাত্রদলের সব বিক্ষোভ। নেতাকে একা ফেলেই পালিয়ে সব কর্মীরা। পরে পুলিশের কাছে হাতজোড় করে ক্ষমা চেয়ে পার পান নগর ছাত্রদল সভাপতি।

আজ সোমবার সকাল ১১টায় এ ঘটনা ঘটে। এ প্রসঙ্গে গাজী সিরাজ উল্লাহ বলেন, ‘আমি নিজের জন্য নয়; কর্মীদের জন্য হাতজোড় করেছি। পুলিশ বিনা উস্কানিতে আমাদের মিছিলে নির্মমভাবে লাঠিচার্জ করে। ছাত্রদলের সভাপতি হওয়া সত্ত্বেও আমিও তাদের হাত থেকে রেহাই পাইনি।

তাই তাদের হাত থেকে রেহাই পেতে হাতজোড় করে ক্ষমা চেয়েছি।’ নগর কোতোয়ালী জোনের সহকারী কমিশনার শাহ মোহাম্মদ আব্দুর রউফ বলেন, ‘কোনো ধরনের বিশৃঙ্খলা কিংবা নাশকতা করবে না এমন শর্তে সভা-সমাবেশের অনুমতি দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু তারা শর্ত ভেঙ্গে নাশকতার চেষ্টা করলে পুলিশ অ্যাকশনে যেতে বাধ্য হয়।’

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সোমবার হরতালের সমর্থনে সকাল ৯টা থেকে নাসিমন ভবনের সামনে ছোট ছোট মিছিল নিয়ে আসতে থাকে বিএনপি ও এর অঙ্গ সংগঠনগুলোর নেতাকর্মীরা। সকাল ১০টার দিকে নেতাকর্মীসহ সেখানে উপস্থিত হন নগর ছাত্রদল সভাপতি গাজী মোহাম্মদ সিরাজ উল্লাহ, সাধারণ সম্পাদক বেলায়েত হোসেন বুলু।

সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকের উপস্থিতিতে হঠাৎ চাঙ্গা হয়ে উঠে সেখানে থাকা শ’খানেক ছাত্রদল কর্মী। ‘উদ্দীপ্ত’ এসব কর্মীদের নিয়ে মিছিল বের করার চেষ্টা করলে পুলিশ বাঁধা দেয়। জবাবে ছাত্রদলের কর্মীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট-পাটকেল ছুড়তে থাকে। এসময় পুলিশ ধাওয়া দিলে মুহূর্তেই একা হয়ে পড়েন ছাত্রদল সভাপতি। শর্ত ভঙ্গ করে মিছিল করায় পুলিশের কাছে হাতজোড় করে ক্ষমা চান। এরপর তাকে আর নাসিমন ভবনের সামনে দেখা যায়নি।

You Might Also Like