মায়া এঞ্জেল্যুর কবিতা

মায়া এঞ্জেল্যু। মার্কিন কবি। গায়িকা এবং সিভিল রাইটস অ্যাক্টিভিস্ট হিসেবেও বিশ্বে সমান পরিচিত। উপার্জন শুরু করেন রান্নার কাজ করে। যৌনকর্মী এবং নাইটক্লাবে নর্তকীও হতে হয়েছে বেঁচে থাকার তাগিদে। মায়া শৈশবে ধর্ষিত হয়ে অসুস্থ ছিলেন দীর্ঘ পাঁচ বছর। এসময় তিনি ক্লিনিক্যালি মূক। জীবনে অনেক চড়াই-উৎড়াই পেরিয়ে উপশম খুঁজেছেন কবিতায়। কবিতা তাকে ফিরিয়ে দেয়নি।

৪ এপ্রিল ছিল তার ৯১ তম জন্মদিন। বাংলা ট্রিবিউন থেকে পাঠকদের জন্য তার ১টি কবিতা এখানে প্রকাশ করা হলো।

ভাষান্তর: ফারহানা রহমান

তবু আমি জাগি

মায়া এঞ্জেল্যু

হয়তো তুমি ইতিহাস লিখবে আমাকে নিয়ে

তোমার তেতো আর বিকৃত মিথ্যে মাখিয়ে

হয়তো আবর্জনার ভেতর

দু’পায়ে মাড়িয়ে যাবে

তবুও আমি ধুলোর মতোই

জেগে উঠবো

আমার এই হাসিখুশি ভাব কি

তোমাকে কাতর করে?

কেন এতো মনমরা হয়ে থাকো?

যেন পেয়েছি তেলের খনি

এভাবেই হাঁটি

নিজের ঘরই তা উত্তোলন করি।

আমি জেগে উঠি

চাঁদ ও সূর্যের যেমন আছে

জোয়ারভাটার নিশ্চয়তা

আশার যেমন পুনরুত্থান

তেমনি আমিও জাগবো

আমাকে কি দেখতে চেয়েছিলে

নত চোখ, নত মাথা?

পুরোটা ভঙ্গুর?

অশ্রুর মতো কাঁধ ঝুকে পড়েছে?

ক্ষত হৃদয়ের কান্নায় দুর্বল হয়ে গেছি?

আমার উদ্ধত ভাব কি তোমাকে ক্ষুব্ধ করে?

তোমাকে কি এটা নির্মমভাবে আতঙ্কিত করে না

এই যে আমি এমনভাবে হাসি যেন আমি সোনারখনি পেয়ে গেছি

আমার বাড়ির পিছনের উঠোন থেকে খনন করে আনছি…

তুমি তোমার শব্দ দিয়ে আমাকে গুলি করতে পারো

অগ্নি দৃষ্টিতে আমাকে কেটে ফেলতে পারো

তীব্র ঘৃণা দিয়ে আমাকে হত্যাও করতে পারো

কিন্তু তখনো আমি বাতাসের মতোই

জেগে উঠবো

আমার যৌন আবেদনময়তা কি তোমাকে দুঃখী করে তোলে?

তুমি কি আশ্চর্য হও

যখন আমি এমনভাবে নাচি যেন

আমার ঊরুর জঙ্গমে হীরে পেয়ে গেছি?

আমি জেগে উঠি

ইতিহাসের লজ্জাকর অধ্যায় থেকে

আমি জেগে উঠি

অতীতের ব্যথার গহ্বর থেকে

আমি বিস্তৃত, উত্তাল, একটি কালো মহাসমুদ্র

স্ফীত হয়ে ফুলে উঠছি জোয়ারের ঢেউয়ে

আমি জেগে উঠি

রাতের ত্রাস ও ভয়কে পিছনে ফেলে

আমি জেগে উঠি

বিস্ময়কর উজ্জ্বল ঊষাতে

আমি জেগে উঠি

আমার পূর্বপুরুষদের কাছে পাওয়া উপহার নিয়ে

আমিই সেই ক্রীতদাসের স্বপ্ন

এবং ক্রীতদাসের আশা

আমি জাগি

আমি জাগি

আমি জাগি!

You Might Also Like