মার্চের আগে মুক্তি পাচ্ছে না ‘পদ্মাবতী’!

সঞ্জয় লীলা বানসালি পরিচালিত বহুল আলোচিত সিনেমা পদ্মাবতী। গত ১ ডিসেম্বর এটি মুক্তির কথা থাকলেও প্রতিবাদের মুখে তা পিছিয়ে যায়। এদিকে শোনা যাচ্ছিল, আগামী ৫ অথবা ১২ জানুয়ারি সিনেমাটি মুক্তি পেতে পারে। তবে মার্চের আগে আর মুক্তি পাচ্ছে না পদ্মাবতী। সূত্রের বরাত দিয়ে প্রকাশিত প্রতিবেদনে এমনটাই জানিয়েছে ভারতীয় একটি সংবাদমাধ্যম।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, নির্মাতারা জানিয়েছেন, পদ্মাবতী সিনেমাটি আংশিকভাবে ঐতিহাসিক ঘটনা অবলম্বনে তৈরি। এ জন্য ইতিহাসবিদদের নিয়ে একটি প্যানেল তৈরি করবে সেন্ট্রাল বোর্ড অব ফিল্ম সার্টিফিকেশন (সিবিএফসি)।

এ প্রসঙ্গে সিবিএফসি’র একটি সূত্র সংবাদমাধ্যমে জানান, নির্মাতারা আবেদনপত্রে সিনেমাটি আংশিক ঐতিহাসিক ঘটনা অবলম্বনে তৈরির বিষয়টি উল্লেখ করে অযথা জটিল করেছেন। এখন এটির সত্যতা যাচাই করতে হবে।

পদ্মাবতী সিনেমায় রানি পদ্মিনি চরিত্রে অভিনয় করছেন দীপিকা পাড়ুকোন। এতে রাজা রাওয়াল রতন সিং ও আলাউদ্দিন খিলজি চরিত্রে দেখা যাবে শহিদ কাপুর ও রণবীর সিংকে। এর আগে পদ্মাবতী সত্য নাকি কাল্পনিক ঘটনা অবলম্বনে নির্মিত তা উল্লেখ না থাকায় নির্মাতাদের কাছে সিনেমাটি ফেরত পাঠিয়েছিল সেন্সর বোর্ড।

সূত্রটি বলেন, ‘আমরা কবে নাগাদ সেন্সরে পদ্মাবতী দেখব তা এখনো নির্ধারণ হয়নি। বিভিন্ন ভাষার কমপক্ষে ৪০টি সিনেমা এর আগে রয়েছে।’

‘ইতিহাসবিদদের কথা বাদ দিন, সিনেমা যাচাইয়ের জন্য আমাদের সাধারণ কমিটির সদস্যরাও এখন নেই। কমপক্ষে জানুয়ারির দ্বিতীয় সপ্তাহের আগে সেন্সর সার্টিফিকেট দেয়া সম্ভব নয়। আমার মনে হয় না, তারা মার্চ অথবা এপ্রিলের আগে সিনেমাটি মুক্তি দিতে পারবে। তবু যদি এটি সিবিএফসি’র পক্ষ থেকে বিনা বাধায় ছাড়পত্র পায়।’ বলেন সূত্রটি।

গত জানুয়ারিতে পদ্মাবতী সিনেমার শুটিং সেটে ভাঙচুর চালায় রাজপুত করনি সেনা। তাদের দাবি ছিল, সিনেমায় পদ্মাবতীর ভাবমূর্তি নষ্ট করছেন সঞ্জয়। কারণ সিনেমায় পদ্মাবতীর সঙ্গে আলাউদ্দিন খিলজির প্রেমের সম্পর্ক দেখানো হয়েছে। কিন্তু বাস্তবে পদ্মাবতী-খিলজির মধ্যে কোনো প্রেমের সম্পর্ক ছিল না। আর এতেই আপত্তি তুলেছে হিন্দু সম্প্রদায়ের ওই দল। সে সময় ভেঙে ফেলা হয় শুটিংয়ের বেশ কিছু মূল্যবান সরঞ্জাম। এমনকি সিনেমার কলাকুশলীদের সঙ্গে ধাক্কাধাক্কির মাঝে বানশালিকে চড় মারেন এক ব্যক্তি। তারপর বন্ধ হয়ে যায় শুটিং।

এরপর গত মার্চে পদ্মাবতী’র শুটিং সেটে আগুন দেয় দুষ্কৃতিকারীরা। মহারাষ্ট্রের কোলাপুরে ঘটনাটি ঘটে। ৪০-৫০ জনের একটি দল পেট্রোল বোমা, পাথর এবং লাঠি নিয়ে হামলা চালায়। তখন সেটের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা সদস্যদের সঙ্গে মারামারি হয়। তারা আশপাশে থাকা গাড়ি ভাঙচুর করে এবং সেটে আগুন দেয়। ওই সময় শুটিং সেটে কোনো কলাকুশলী ছিলেন না কিন্তু অনেক পশু ছিল। যেগুলো শুটিংয়ের প্রয়োজনে আনা হয়েছিল। এরপর বেশ কিছুদিন ধরে বিভিন্ন রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব ও সংগঠনের দাবিতে পদ্মাবতী সিনেমাটির মুক্তি স্থগিত করা হয়।

You Might Also Like