‘মার্কিন এজেন্টকে খুঁজে বের করার প্রতিশ্রুতি দেয় নি ইরান’

মার্কিন কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থা বা এফবিআই’র সাবেক এজেন্ট রবার্ট লেভিনসনকে খুঁজে বের করা এবং তাকে দেশে ফেরত পাঠানোর বিষয়ে ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরান প্রতিশ্রুতি দিয়েছে বলে আমেরিকা যে দাবি করেছে তা নাকচ করেছে তেহরান। ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র বাহরাম কাসেমি বলেছেন, রবার্ট লেভিনসনের বিষয়ে তেহরানের কাছে কোন তথ্য নেই।

বাহরাম কাসেমি শনিবার বলেন, “লেভিনসন একটি সংকটময় মুহূর্তে ইরানে এসেছিলেন এবং তারপর তিনি আমাদের দেশ ত্যাগ করেছেন। তার ভাগ্যের বিষয়ে ইরানের কাছে কোনো তথ্য নেই।”

২০০৭ সালের ৯ মার্চ লেভিনসন ইরানের কিশ দ্বীপ সফর করেন। এরপর তিনি নিখোঁজ হন এবং সেই থেকে তার বিষয়ে কোনো খোঁজ পাওয়া যায় নি। ইরান সফর সম্পর্কে নানা রকম খবর প্রচার হয়েছে। কেউ কেউ বলেছেন, এ অঞ্চলে সিগারেট নকল হওয়ার বিষয়ে তিনি তদন্ত করতে এসছিলেন। আবার কেউ কেউ বলেন, তিনি নিতান্তই ব্যবসায়িক কারণে এসেছিলেন।
২০১০ সালে লেভিনসনের একটি ভিডিও প্রচার করা হয় যাতে তিনি তার মুক্তির জন্য সাহায্য চান। ২০১১ সালে ই-মেইলে তার পরিবারের কাছে বন্দী অবস্থার কিছু ছবি পাঠানো হয়।

লেভিনসনের নিখোঁজের ১১তম বার্ষিকীতে শুক্রবার মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তর এক বিবৃতিতে বলেছে, তাকে খুঁজে আমেরিকায় পাঠানোর বিষয়ে ইরান প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। এ প্রতিশ্রুতি পালনের জন্য মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তর তেহরানের প্রতি আহ্বান জানায়। এ বিষয়ে বাহরাম কাসেমি বলেন, লেভিনসনের বিষয়টিকে ইরান মানবিক দৃষ্টিতে দেখে কিন্তু তাকে উদ্ধারের ব্যাপারে তেহরান কোনো প্রতিশ্রুতি দেয় নি। মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের ওই দাবিকে বাহরাম কাসেমি ভিত্তিহীন বলে উড়িয়ে দেন। তিনি বলেন, মানবিক দৃষ্টিকোণ থেকে লেভিনসনকে উদ্ধারের বিষয়ে ইরান কোনো প্রচেষ্টা বাদ দেয় নি।

তিনি দুঃখ করে বলেন, মার্কিন নাগরিকের উদ্ধারে ইরান মানবিক দৃষ্টিকোণ থেকে কাজ করলেও মার্কিন সরকার ইরানি নাগরিকদের বিষয়ে অমানবিক দৃষ্টিভঙ্গি পোষণ করে। কাসেমি বলেন, মার্কিন সরকার বেশ কিছু ইরানি নাগরিককে ভিত্তিহীন অভিযোগে বছরের পর বছর কারাগারে আটকে রেখেছে। এমনকি এসব নাগরিকের পরিবারের লোকজনকেও তাদের সঙ্গে দেখা করতে দেয়া হয় না।

You Might Also Like