মাতাল বানরের হামলায় আহত ২৫০, নিহত ১

ভারতের উত্তর প্রদেশের মির্জাপুর জেলায় কালুনা নামের একটি মাতাল বানরের হামলায় ২৫০ জন আহত হয়েছে। নিহত হয়েছে একজন। এমন ভয়ঙ্কর কাণ্ড ঘটানোর পর বানরটিকে পাকড়াও করা হয়েছে। পুড়ে দেওয়া হয়েছে চিড়িয়াখানার সেলে। বাকি জীবন তাকে সেখানেই থাকতে হবে। খবর মার্কা ও গালফ নিউজের।

কিভাবে এতোটা ভয়ঙ্কর হয়ে উঠলো বানরটি?

মূলত তার মালিক তাকে নিয়মিত মদ পান করতে দিতো। তাতে মদ পানে অভ্যস্ত হয়ে ওঠে বানরটি। সম্প্রতি তার মালিক মারা যান। এরপর থেকে আর মদ পান করতে পারছিল না। মদের নেশায় একটা সময় এলেমেলো আচরণ করতে শুরু করে। আগ্রাসী হয়ে হামলা করতে শুরু করে মানুষকে। কাউকে আচড় কাটে তো কাউকে কামড়ে দেয়। এমন আচড় কাটা ও কামড়ে আহত হয়েছে ২৫০ জন। তাদের মধ্যে একজনকে দেওয়া কামড় ছিল খুবই মারাত্মক। তিনি মারা যান।

এলাকায় ত্রাস সৃষ্টি করা এই বানরটিকে শেষ পর্যন্ত অনেক কষ্টে বন্দি করা সম্ভব হয়। বন্দি করে তাকে নিয়ে যাওয়া হয় কানপুর চিড়িয়াখানায়। বাকি জীবন তাকে চিড়িয়াখানার সেলেই থাকতে হবে।

বন্দি হওয়ার পর বানরটির আচরণে কোনো পরিবর্তন এসেছে কি?

এ বিষয়ে চিড়িয়াখানার পশুচিকিৎসক মো. নাসির বলেন, ‘তার আচরণে কোনো পরিবর্তন হয়নি। এখনো আগের মতোই আগ্রাসী আচরণ করছে। তবে বাকি জীবন তাকে বন্দি অবস্থাতেই থাকতে হবে। এমনটাই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।’

You Might Also Like