মনিবের টানে উটের কাণ্ড

পোষ্য প্রাণির প্রতি মানুষের ভালোবাসার অনেক কথা শোনা যায়। আবার প্রভু-ভক্তির কারণে খবরের শিরোনাম হয় অনেক প্রাণি। সেই ঘটনা নিয়ে চলচ্চিত্র হয়; গল্প-উপন্যাসেও উঠে আসে সেসব কথা। এখানে যে উটের কথা বলা হচ্ছে, তাকে নিয়ে গল্প-উপন্যাস লেখা হবে কিনা ভবিষ্যৎ-এ জানা যাবে, তবে উটটি ইতোমধ্যেই খবরের শিরোনাম হয়েছে। সম্প্রতি ১০০ কি.মি. পাড়ি দিয়ে মনিবের কাছে ফিরে এসে আলোচনায় জন্ম দিয়েছে এই মরুভূমির জাহাজ!

ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর চীনে। প্রায় আট মাস আগে উটটি বিক্রি করে দেন তার মনিব। প্রায় ১০০ কি.মি. দূরে হয় তার নতুন মনিবের ঠিকানা। নতুন মনিবের বাড়ি গিয়ে উটটি কোনো সমস্যাই করেনি। ফলে মনিব মনে করেছিলেন, নতুন পরিবেশে উটটি হয়তো ভালোভাবেই মানিয়ে নিয়েছে। কিন্তু গত ২৭ জুন থেকে হঠাৎ উটটিকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না।

পরে জানা যায়, মরুভূমি, পাহাড়, মহাসড়ক, বেষ্টনি পাড়ি দিয়ে উটটি তার পুরোনো মনিবের কাছে ফিরে গেছে। পথে এক পশুপালক উটটিকে দেখতে পায় এবং তার মনিবের সন্ধান করতে থাকে। উট নিজেই সেই পশু পালককে পথ দেখিয়ে পুরোনো মনিবের বাড়ি গিয়ে উপস্থিত হয়।

উটটির মালিক তৈমুর। তিনি বলেন, ‘ওকে ফিরে পেয়ে আমি খুবই অবাক হয়েছি! যদিও ফিরিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত আমি তখনই নিয়েছিলাম। কিন্তু ওর বর্তমান মালিক ফিরিয়ে নিতে রাজি হয়নি। তাকে অন্য একটি উট দিয়েছি।’

উটটির শরীরে অসংখ্য ক্ষত ছিলো। ধারণা করা হচ্ছে বেষ্টনি পাড় হতে গিয়ে আঘাত পেয়েছে। তবে তৈমুর উটটি আর বিক্রি করতে চান না। ‘আমরা এটি আর কখনোই বিক্রি করব না। উট খুবই বুদ্ধিমান প্রাণি। জীবনের বাকি অংশ এটি মুক্ত অবস্থায় থাকবে’, বলেন তৈমুরের স্ত্রী।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এ নিয়ে একটি প্রামাণ্যচিত্র প্রকাশের পর নেটিজেনদের মধ্যে সাড়া পড়ে যায়। ভিডিওতে একজন মন্তব্য করেছেন, ‘এই ঘটনায় আমার চোখে পানি চলে এসেছে। প্রাণিদের ভালোবাসা বিশুদ্ধ। দয়া করে উটটির ঠিকঠাক যত্ন নিন।’

অপর একজন লিখেছেন, ‘উটটি কত কষ্ট করেছে আমি ভাবতেই পারছি না। সম্ভবত ওর বাড়ির কথা খুব মনে পড়ছিল।’

You Might Also Like