মঈনের তান্ডব, ৫৩ বলে সেঞ্চুরি

ব্রিস্টলে ব্যাট হাতে তা-ব চালিয়েছেন সাত নম্বরে ব্যাট করতে নামা মঈন আলী। তুলে নিয়েছেন ইংল্যান্ডের ক্রিকেট ইতিহাসে দ্রুততম দ্বিতীয় সেঞ্চুরি। এবং সেটি তিনি করেছেন মাত্র ৫৩ বলে।

৫৩ বলের ১৫টিকে করেছেন মাঠ ছাড়া। তার মধ্যে ৭টি চার, ৮টি ছক্কা। অর্থাৎ ১৫ বলেই মঈন করেছেন ৭৬ রান! ৪৮.৫ ওভারের সময় দলীয় ৩৫৪ রানের মাথায় তিনি যখন আউট হন তখন তার নামের পাশে জ্বলজ্বল করছিল ১০২ রান। যা এসেছে মাত্র ৫৭ বলে। তার আগে ইংল্যান্ডের জস বাটলার মাত্র ৪৬ বলে সেঞ্চুরি করেছিলেন। যা ইংল্যান্ডের ওয়ানডে ক্রিকেট ইতিহাসে দ্রুততম সেঞ্চুরি।

রোববার ব্যাট করেত নেমে শুরু থেকেই মারমুখী ছিলেন মঈন। ৪৩ ওভার শেষে মঈনের রান ৩৭ বলে ৩৭। ৪৪ ওভার শেষে তার রান ৩৯ বলে ৩৯। ৪৫তম ওভার বল হাতে আসেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের মিগুয়েল কামিন্স। তার উপর চরাও হন মঈন। ক্রিস ওকস কামিন্সের প্রথম বলে ১ রান নিয়ে মঈনকে স্ট্রাইক দেন। পরের পাঁচ বলে মঈন তোলেন ২৪ রান! মারেন তিনটি ছক্কা, ১টি চার, সঙ্গে ২ রান। ৩৯ বলে ৩৯ করা মঈনের রান কামিন্সের ওভারের পরে হয়ে গেল ৪৪ বলে ৬২! ৪৬ তম ওভারে জ্যাসন হোল্ডারকেও তুলোধুনো করেন তিনি। একইভাবে এবারও ২৫ রান তোলেন মঈন। তাতে ৪৯ বলে তার রান হয় ৮৭!
৪৭তম ওভারে জীবন পান মঈন। ব্যাকওয়ার্ড পয়েন্টে তার ক্যাচ ছাড়েন গেইল। ৪৭ ওভার শেষে ইংল্যান্ডের রান ৩৩৬/৭। মঈনের রান ৫০ বলে ৮৮। ৪৮তম ওভারে আবার আসেন মিগুয়েল কামিন্স। তার প্রথম বলে ১ রান নিয়ে মঈনকে স্ট্রাইক দেন লিয়াম প্লাঙ্কেট। দ্বিতীয় বলে ছক্কা হাঁকিয়ে ৯৪ রানে পৌঁছে যান মঈন। পরের বলে কোনো রান নেননি। চতুর্থ বলে আবারো ছক্কা হাঁকিয়ে ৫৩ বলে সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন। হয়ে যান ইংল্যান্ডের ওয়ানডে ক্রিকেটের ইতিহাসের দ্রুততম দ্বিতীয় সেঞ্চুরিয়ান।

এরপর আরো ৭ বল খেলে ২ রান করেন মঈন। এই ৭ বলের মধ্যে আরো দুইবার জীবন পান তিনি। কিন্তু চতুর্থবার আর জীবন পাননি। নার্সের বলে জ্যাসন হোল্ডারের হাতে ধরা পড়ে সাজঘরে ফেরেন মঈন আলী। যাওয়ার আগে ব্রিস্টলে তুলে যান ঝড়।

You Might Also Like