ভালো বল করেছেন মুস্তাফিজ, তবুও হারতে হলো দলকে!

শেষ ওভারে ৭ রান লাগত চেন্নাই সুপার কিংসের। ২০ রান দিয়ে চেন্নাইকে ম্যাচটা প্রায় উপহার দিয়ে এসেছিলেন মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের পেসার জাসপ্রিত বুমরাহ।

শেষ ওভারে মুস্তাফিজুর রহমানের হাতে বল তুলে দেন মুম্বাই অধিনায়ক রোহিত শর্মা। প্রথম তিন বলে কোনো রান দেননি মুস্তাফিজ। চতুর্থ বলে দারুণ এক ফ্লিক শটে শর্ট ফাইন লেগ দিয়ে ছক্কা হাঁকান কেদার যাদব। মুস্তাফিজের করা পঞ্চম বল ছিল ওভারপিচ। কভার ড্রাইভে চার মেরে চেন্নাইকে ১ উইকেটের জয় উপহার দেন যাদব।

আইপিএলে ফিরে শনিবার দারুণ জয় তুলে নিল মহেন্দ্র সিং ধোনির চেন্নাই। মুম্বাইয়ে মুস্তাফিজের শুরুটা ভালো হলো না। ৩.৫ ওভারে ৩৯ রান দিয়ে পেয়েছেন ১ উইকেট। ৬টি চার ও ১টি ছক্কা হজম করেছেন। তবে ১৬৫ রানের পুঁজি নিয়ে মুম্বাই একটা সময় জয়ের পথেই ছিল। কিন্তু শেষ দিকে ডোয়াইন ব্রাভোর ঝোড়ো ব্যাটিংয়ে এলোমেলো হয়ে যায় বর্তমান চ্যাম্পিয়ন শিবির।

জয়ের জন্য শেষ ১৮ বলে ৪৭ রান দরকার ছিল চেন্নাইয়ের। নিউজিল্যান্ডের পেসার মিচেল ম্যাকক্লেনাঘান ১৮তম ওভারে দেন ২০ রান। ১৯তম ওভারে বুমরাহ খরচ করেন আরো ২০ রান। তাতেই ম্যাচ হাতের মুঠোই এসে যায় চেন্নাইয়ের। শেষ ওভারে প্রথম তিন বলে কোনো রান না দিলেও পরের দুই বলে দুই বাউন্ডারি হজম করেন মুস্তাফিজ।

প্রথম স্পেলে এক ওভারে মুস্তাফিজ দিয়েছিলেন ৯ রান। ১২তম ওভারে ফিরে ৮ রানে নেন রবীন্দ্র জাদেজার উইকেট। পরের ওভারে দেন আরো ১৩ রান। ৩ ওভারে ২৯ রান দিয়ে মোটামুটি অন্যদের থেকে ভালোই বোলিং করেছিলেন। তাই অধিনায়ক তার ওভার শেষে রেখে দিয়েছিলেন। কিন্তু বুমরাহ ও ম্যাকক্লেনাঘানের বাজে বোলিংয়ে শেষ ওভার কোনো কাজে আসেনি!

ব্রাভো ৩০ বলে ৬৮ রানের টর্নেডো ইনিংস খেলে চেন্নাইয়ের জয়ের নায়ক। হার্দিক পান্ডিয়া ও মায়াং মারকান্ডে ৩টি করে উইকেট নিয়ে মুম্বাইকে ম্যাচে ফিরিয়েছিলেন। কিন্তু শেষটা রাঙাতে পারেনি বাকিরা। তাতে হার দিয়ে আইপিএলের ১১তম আসর শুরু হলো বর্তমান চ্যাম্পিয়ন মুম্বাইয়ের।

মুম্বাইয়ের ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে ইশান কিশানের ২৯ বলে ৪০, সূর্যকুমার যাদবের ২৯ বলে ৪৩ ও ক্রুনাল পান্ডিয়ার ২২ বলে ৪১* রানে ৪ উইকেটে ১৬৫ রানের পুঁজি পায় আইপিএলের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন মুম্বাই।

ধোনির চেন্নাইয়ের সেরা বোলার শেন ওয়াটসন। ২৯ রানে নেন ২ উইকেট। ব্রাভো উইকেট না পেলেও ভালো বোলিং করেছেন। ৪ ওভারে দিয়েছেন ২৫ রান।

অলরাউন্ড নৈপুণ্যে ম্যাচসেরা নির্বাচিত হন ব্রাভো।

You Might Also Like