“ব্লাড মানি” দিয়ে মুক্তি পেল ধর্ষক পিতা

সৌদি আরবে পাঁচ বছর বয়সী মেয়েকে ধর্ষণ ও নির্যাতন করে হত্যার ঘটনায় অভিযুক্ত এক সেলিব্রেটি ধর্মপ্রচারককে জেল থেকে মুক্তি দিয়েছে দেশটির একটি আদালত।

মেয়ের মাকে ক্ষতিপূরণ হিসেবে ৩১ হাজার পাউন্ড দিতে রাজি হওয়ায় আদালত তাকে মুক্তি দিতে রাজি হয়। সে গত কয়েক মাস ধরে জেলে ছিল।

এই ব্যক্তির নাম ফায়ান আল ঘামদি। সমাজকর্মীরা বলছেন, মৃত্যুর আগে মেয়েটিকে বারবার ধর্ষণ করা হয়েছে। পরে তাকে পুড়িয়ে হত্যা করে পাষন্ড এই পিতা।

ফায়ান তার মেয়েকে বেত ও তার দিয়ে প্রহার করার কথা স্বীকার করে। প্রথমে তার মেয়ে লামার কুমারিত্ব নিয়ে তার সন্দেহ হয়েছিল। সে এজন্যে তার মেয়েকে চিকিৎসকের কাছেও নিয়ে যাওয়া হয়েছিল।

ফায়ানকে এ অপরাধের জন্যে মৃত্যুদন্ড বা দীর্ঘমেয়াদে শাস্তি না দিয়ে ‘ব্লাড মানি’ তথা তার পরিবারকে ক্ষতিপূরণ দেয়ার মাধ্যমে মুক্তি দেয়া হয়েছে।

আলবাওয়াবা নিউজের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বিচারক বলেছেন, ফায়ান যে কয়দিন কারাদন্ড ভোগ করেছে ও যে পরিমাণ ‘ব্লাড মানি’ দিতে রাজি হয়েছে তাতে তার যথেষ্ট শাস্তি হয়েছে।

ফায়ানকে নিয়মিত সৌদি আরবের টেলিভিশনে দেখা যায়। ইসলামী আইনে ‘ব্লাড মানি’ ক্ষতিপূরণ হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

তবে লামা যদি মেয়ে না হয়ে ছেলে হতো তাহলে তাকে দ্বিগুণ ক্ষতিপূরণ দেয়া হতো।

You Might Also Like