ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ১৪৪ ধারা ভেঙে পিকেটিং

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজনগরে ১৪৪ ধারার লঙ্ঘন করে হরতালের পিকেটিং করছে স্থানীয় আওয়ামী লীগ। উপজেলার বিভিন্ন স্থানে গাছের গুঁড়ি ফেলে সড়কে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করেছে নেতা-কর্মীরা।

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদমন্ত্রীর বিজয়নগরে আসাকে কেন্দ্র করে স্থানীয় আওয়ামী লীগ গত বৃহস্পতিবার রোববার সকাল-সন্ধ্যা হরতালের ডাক দেয়।

এদিকে সরাইল, আশুগঞ্জ, বিজয়নগর ও সদর উপজেলার পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে উপজেলা প্রশাসন রোববার সকাল থেকে রাত ১২টা পর্যন্ত ১৪৪ ধারা জরির ঘোষণা দেয়। এরপর থেকে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর বিপুল সংখ্যক সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। পুলিশের পাশাপাশি ২ প্লাটুন বিজিবি, র‌্যাব, এপিবিএনকে টহল দিতে দেখা গেছে।

তবে সকাল ১০টার দিকে আমতলি বাজারে এবং বেলা সাড়ে ১১টায় উপজেলার সিঙ্গারবিল বাজারে গাছের গুঁড়ি ফেলে নেতা-কর্মীদের পিকেটিং করতে দেখা গেছে। এ সময তারা হাতে লাঠিসোটা নিয়ে বিভিন্ন স্লোগান দিচ্ছিলেন। এ ছাড়া বিজয়নগর উপজেলার চান্দুরায় ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে প্রবেশের চেষ্টা করে আওয়ামী লীগ ও ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা। তবে পুলিশ তাদের বাধা দেয়।

দুপুর পৌনে ১২টার দিকে চম্পকনগর বাজারে পুলিশের ব্যাপক উপস্থিতি লক্ষ করা গেছে। এ সময পুলিশের পক্ষ থেকে লোকজনকে দোকানপাট বন্ধ করে বাড়ি চলে যাওয়ার জন্য মাইকিং করেছে।

তবে স্থানীয় আওয়ামী লীগ ও ছাত্রলীগের একাধিক নেতাকে মোটরসাইকেল নিয়ে হরতালের তদারকি করতে দেখা গেছে। তবে যান চলাচল সীমিত রয়েছে। অন্যদিকে উপজেলা প্রাণিসম্পদ হাসপাতাল ঘিরে রেখেছে পুলিশ।

রোববার জেলার বিজয়নগরে প্রাণিসম্পদ হাসপাতাল উদ্বোধন করতে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদমন্ত্রী ছায়েদুল হকের আসার কথা ছিল। তবে সেই অনুষ্ঠানে স্থানীয় সাংসদ র আ ম উবাইদুল মুকতাদির চৌধুরীকে আমন্ত্রণ না জানানোয় সেখানে হরতালের ঘোষণা দেয় স্থানীয় আওয়ামী লীগ। বেলা ১১টায় মন্ত্রীর নাসিরনগর থেকে রওনা দেওয়ার কথা থাকলেও এখনো তিনি নাসিরনগরে অবস্থান করছেন।

You Might Also Like