ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় গৃহবধূকে ধর্ষণের পর হত্যা চেষ্টা

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় এক গৃহবধূকে (৩০) ধর্ষণের পর যৌনাঙ্গে ছুরিকাঘাত করে হত্যার চেষ্টা করেছে দুর্বৃত্তরা।

আজ ভোররাত ৩ টার দিকে সদর উপজেলার নাটাই (উত্তর) ইউনিয়নের থলিয়ারা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

আহত ওই গৃহবধূকে আজ সকালে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ঢাকায় প্রেরণ করা হয়েছে। আহত গৃহবধূ তিন সন্তানের জননী।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, আজ ভোর রাত তিনটার দিকে থলিয়ারা গ্রামের আবদুল মালেকের বাড়ির দরজা ভেঙ্গে ভেতরে ঢুকে দুই দুর্বৃত্ত। তারা ঘরে ঘুমন্ত অবস্থায় থাকা ওই গৃহবধূর হাত ও মুখ বেঁধে উপর্যপরি ধর্ষণ করে। ধর্ষণের সময় এক দুর্বৃত্তের মুখোশ খুলে যাওয়ায় ওই গৃহবধূ দুর্বৃত্তদের মধ্যে একজনকে চিনে ফেলে। চিনে ফেলার কারণে দুর্বৃত্তরা তার যৌনাঙ্গে ছুরিকাঘাত করে হত্যার চেষ্টা করে। এরপর দুর্বৃত্তরা ঘর থেকে নগদ টাকা ও স্বর্ণালংকার লুটে নিয়ে পালিয়ে যায়। পরে ওই গৃহবধূর আত্মচিৎকার শুনে প্রতিবেশিরা ছুটে এসে তাকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে জেলা সদর হাসপাতালে নিয়ে আসেন। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে ঢাকায় প্রেরণ করেন বলে জানান গৃহবধূর ভাবি হেলেনা বেগম। দুর্বৃত্তদের এই নৃশংসতায় এলাকায় আতংক দেখা দিয়েছে। দুর্বৃত্তদের এখনো গ্রেপ্তার করতে না পারায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছে এলাকাবাসী।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মঈনুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

অভিযুক্তদের গ্রেফতারে পুলিশের অভিযান চলছে বলে জানান ওসি।

You Might Also Like