হোম »  ব্রাক্ষণবাড়িয়া কমিউনিটির বর্ণাঢ্য বনভোজন

 ব্রাক্ষণবাড়িয়া কমিউনিটির বর্ণাঢ্য বনভোজন

admin- Saturday, July 29th, 2017

ব্রাক্ষণবাড়িয়া কমিউনিটি অফ নর্থ আমেরিকা ইনক এর বনভোজন গত ২৩ জুলাই অনুষ্ঠিত হয় নিউইয়র্ক আপষ্ট্রেটের বিয়ার মাউন্ডটেন স্টেট পার্কে। মাউন্ডটের প্রাকৃতিক ছায়াঘেরা মনোরম পরিবেশে বসেছিল প্রবাসী ব্রাক্ষণবাড়িয়াবাসীর বিশাল মিলনমেলা। নিউ ইয়র্কের বিভিন্ন স্থান থেকে ৩ টি বিলাসবহুল বাস ও বিপুল সংখ্যক প্রাইভেট গাড়িতে পার্ক স্পটে পৌঁছে বেলা ১২ টায়। মুহূর্তে পার্ক কানায় কানায় ভরপুর হয়ে যায়। সেখানে আমন্ত্রিত অতিথিদের স্বাগত জানান সংগঠনের সভাপতি মো: রহিজ উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন তালুকদার (স্বপন), বনভোজন উদযাপন কমিটির আহবায়ক মোহাম্মদ শাহ মোয়াজ্জেম এবং সদস্য সচিব সবজুল মুমিন তালুকদার (সবুজ) সহ কার্যকরী কমিটির সদস্যবৃন্দ। এরপর বনভোজন আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন হয়। এতে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাবেক সংসদ সদস্য শহিদুর রহমান, বৃহত্তর কুমিল্লা সমিতির সভাপতি আলহাজ্ব ফিরোজুল ইসলাম পাটোয়ারী, নিউইয়র্ক পিকনিক ইনকের সভাপতি সরকার ইসলাম, বাংলাদেশ সোসাইটির সাবেক সমাজ কল্যাণ সম্পাদক কাজী তোফায়েল ইসলাম, সাবেক প্রচার ও গণসংযোগ সম্পাদক মফিজুল ইসলাম ভূঁইয়া (রুমি), বাংলাদেশ সোসাইটির স্কুল ও শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক আহসান হাবিব, বৃহত্তর কুমিল্লা সমিতির সহ সভাপতি মিয়া মোহাম্মদ দুলাল, সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর সরকার, কসবা সোসাইটির সভাপতি নূর ভূইয়াঁ সেন্টু, ব্রাক্ষণবাড়িয়া কমিউনিট নর্থ আমেরিকার উপদেষ্টা আবু মুছা খাঁন, আইয়ূব চৌধুরী হারুন, প্রফেসর নোয়ার মিয়া, নাদির এ আইয়ূব, বিশিষ্ট রিয়েলেটর ইনভেষ্টর আবিদুর রহমান, বিশিষ্ট রিয়েলেটর মঈনুল ইসলাম, সিপিএ আব্দুল মতিন, ব্রাক্ষণবাড়িয়া সম্মেলনী নর্থ আমেরিকার সাধারণ সম্পাদক আসফাক মাসুক, সহ সাধারণ সম্পাদক শাহিনুল ইসলাম, কমিউনিটি লিডার আবু সাঈদ প্রমুখ। উদ্বোধনের পর শুরু হয় বিভিন্ন ইভেন্টে খেলাধুলা। প্রথমেই ছোট্ট মণিদের (বালক/বালিকা) দৌড় প্রতিযোগিতা। তারপর একে একে মাঝারী বয়সী ও বড়দের (ছেলে/মেয়ে) দৌড়, ফুটবল প্রীতি ম্যাচ ও বেডমেন্টেন ইত্যাদি। বনভোজনে যথারীতি সকালের নাস্তা, পার্কে পৌঁছার পর চিপস, হটডগ ও তরমুজ পরিবেশনে সকলেই তৃপ্ত হোন। খেলাধুলার পর ছিল দুপুরের খাবার।  পুরাতন আর নতুন বন্ধুদের আড্ডা, আবার কেউ কেউ প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্যে বিভোর হয়ে সৃষ্টিকর্তাকে স্মরণ করছেন। কেউবা মনের হরষে গান গাইছেন, কি সুন্দর ফুল/ কি সুন্দর ফল/ মিঠা নদীর পানি/ খোদা তোমার মেহেরবানী। বনভোজনের আকর্ষণীয় ইভেন্টের মধ্যে ছিল বালিশ খেলা প্রতিযোগিতা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। আরো আকর্ষণীয় ছিল র‌্যাফেল ড্র। র‌্যাফেল ড্রতে প্রথম পুরস্কার ছিলো স্বর্ণের গহনা। দ্বিতীয় পুরস্কার এলইডি টিভি, তৃতীয় পুরস্কার ৩২ ল্যাপটপ। এছাড়াও আরো অনেকগুলো মূল্যবান পুরস্কার ছিল। দিনের শেষে পড়ন্ত বিকালে উদযাপন কমিটির পরিচালনায় শুরু হয় পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান। পুরস্কার বিতরণ করেন সম্মানিত অতিথিবৃন্দ। খেলাধুলা পরিচালনা করেন সাইফুল ইসলাম আলমগীর, সবজুল মুমিন তালুকদার (সবুজ), মারুফুল হক চৌধুরী। বনভোজনের সার্বিক তত্বাবধানে ছিলেন, শাহীনুর রহমান (সানি), প্রফেসর আব্দুর রউফ, তুহিন মিয়া, মনিরুল হক (মিঠু), বজলুর রহমান হারুন, এমরান খাঁন, মো: এমরানুর রহমান, মো: নাঈম মিয়া, মো: সফিকুল ইসলাম, নাজির আহমেদ। স্পন্সর ছিলেন এটর্ণী মঈন চৌধুরী, ওয়েস্টগেট ইনভেষ্টর, নাদির এ আইয়ূব, মঈনুল ইসলাম, তিতাস সুপার মার্কেট, আব্দুল মতিন ভূঞা।

সবশেষে সভাপতি মো: রহিজ উদ্দিন এবং আহবায়ক মো: শাহ মোয়াজ্জেম বনভোজনে অংশগ্রহণকারী সকল অতিথিদেরকে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও ধন্যবাদ জানিয়ে সমাপ্তি ঘোষণা করেন।

সংবাদ প্রেরক: আনোয়ার হোসেন তালুকদার স্বপন