ব্যাংক কেলেঙ্কারি নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর তীব্র সমালোচনা করলেন রাহুল গান্ধী

ভারতে পাঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাংক দুর্নীতি নিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে তীব্র কটাক্ষ করলেন দেশের প্রধান বিরোধী দল কংগ্রেসের সভাপতি রাহুল গান্ধী।

ভারত থেকে এরআগে বিভিন্ন দুর্নীতিতে জড়িয়ে যারা দেশ ছেড়ে পালিয়েছেন এবং সর্বশেষ পলাতক নীরব মোদির কথা উল্লেখ করে রাহুল আজ প্রধানমন্ত্রীকে কটাক্ষ করেছেন।

আজ (সোমবার) রাহুল গান্ধী বলেন, প্রথমে ললিত, পুনরায় মালিয়া, এবার নীরব মোদিও পলাতক। কোথায় গেলেন ‘না খাউঙ্গা, না খানে দুঙ্গা’ (ঘুষ খাবো না, কাউকে ঘুষ খেতেও দেবো না) বলা দেশের চৌকিদার?’

ব্যাংক দুর্নীতি ইস্যুতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি নিশ্চুপ থাকায় এবং ওই ইস্যুতে কোনো বিবৃতি না দেয়ায় গতকাল (রোববার)ও রাহুল গান্ধী কটাক্ষ করে ‘অপরাধীদের মতো আচরণ করা বন্ধ করুন’’ বলে মন্তব্য করেন।

এর আগে আইপিএল কেলেঙ্কারিতে অভিযুক্ত ললিত মোদি দেশ থেকে পালিয়ে বিদেশে রয়েছেন। ৯ হাজার কোটি টাকার অনাদায়ী ঋণের মামলায় বিজয় মালিয়া দেশ ছেড়ে বিদেশে গিয়ে রয়েছেন। সবশেষে হীরে ব্যবসায়ী পাঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাংক দুর্নীতিতে অভিযুক্ত হয়েছেন। তিনিও দেশ ছেড়ে বিদেশে পাড়ি জমানোয় জাতীয় রাজনৈতিক অঙ্গনে তা আলোচনার প্রধান বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে।

পাঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাংকে প্রায় সাড়ে এগারো হাজার কোটি টাকার দুর্নীতি প্রকাশ্যে আসায় চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে। ভারতের প্রধান বিরোধী দল কংগ্রেসের পক্ষ থেকে নীরব মোদিকে ‘ছোটা মোদি’ নামেও বলা শুরু হয়েছে।

আজ (সোমবার) বিদ্রোহী বিজেপি নেতা শত্রুঘ্ন সিনহা বলেছেন, ‘গোটা বিশ্বের মধ্যে ভারতই একমাত্র দেশ হবে যেখানে শীর্ষস্থানে বসে থাকা দায়িত্বশীল ব্যক্তিরা জরুরি ইস্যুতে সামনে এসে কিছু বলছেন না বা সাফাই দিচ্ছেন না। যদিও দেশের মানুষের সাফাই জানার অধিকার রয়েছে।’

তিনি আজ কোটিপতি নীরব মোদিকে ‘বড়ে মিয়াঁ’ ও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে ‘ছোটে মিয়াঁ’ বলে কটাক্ষ করেছেন। শত্রুঘ্ন সিনহা বলেন, ‘একটি রাষ্ট্রীয় ব্যাংকে এত বড় দুর্নীতি খবর বিরল ঘটনা। এটা সরকারের শীর্ষব্যক্তিদের দায়িত্বহীন মনোভাবের ফল। তিনি একটি হিন্দি গানের লাইন উল্লেখ করে ‘বড়ে মিয়াঁ তো বড়ে মিয়াঁ, ছোটে মিয়াঁ সুবহানাল্লাহ’ বলেও কটাক্ষ করেছেন।

শত্রুঘ্ন সিনহা বলেন, ওই বিষয়ে দেশের চৌকিদার (প্রধানমন্ত্রী) অথবা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় কোনো দায়িত্ব নেয়নি বা কোনো সাফাইও দেয়নি।

এরআগে কংগ্রেস নেতা কপিল সিব্বাল কটাক্ষ করে বলেছিলেন, দেশের ‘চৌকিদার’ যদি ঘুমোয়, তা হলে চোর তো পালাবেই। প্রধানমন্ত্রী এর আগে নিজেকে দেশের ‘চৌকিদার’ বলে উল্লেখ করেছিলেন।

এদিকে, ব্যাংক দুর্নীতিতে অভিযুক্ত নীরব মোদির সঙ্গে মুঘল সম্রাট বাবরের সঙ্গে তুলনা করেছেন অভিনেতা এজাজ খান। গতকাল (রোববার) সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তিনি বলেন, ‘বাবর বিদেশি ছিলেন, বাইরে থেকে এসেছিলেন, দেশকে লুঠ করেছিলেন, যদিও সেই লুঠের পয়সা ভারতীয় জনগণের জন্যই খরচ করেছিলেন। তা সত্ত্বেও তিনি দেশদ্রোহী। নীরব মোদি ও মালিয়া ভারতীয়, দুজনেই ভারতীয় কোষাগার লুঠ করেছেন এবং লুঠ করে বিদেশে পালিয়ে গেছেন। কিন্তু দেশপ্রেমিক ঠিকাদাররা তাদের দেশদ্রোহীও বলবে না!’

You Might Also Like