‘ব্যবসায়ীদের জন্য উন্মুক্ত করা হবে গ্যাসের বাজার’

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেছেন, আগামী দুই বছরের মধ্যে গ্যাসের বাজার ব্যবসায়ীদের জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া হবে। এসময় তিনি ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দকে বলেন, আপনারা এখন থেকেই এ ব্যাপারে পরিকল্পনা গ্রহণ শুরু করতে পারেন।

সোমবার মন্ত্রণালয়ে ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির(ডিসিসিআই) প্রতিনিধি দলের সঙ্গে প্রাক-বাজেট আলোচনায় তিনি এ কথা বলেন।

এসময় ব্যবসায়ী নেতারা বলেন, দেশের ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পের কথা বিবেচনা করে প্যাকেজ ভ্যাট বহাল রাখলে এ খাতের উন্নয়ন হবে। এ জন্য ভ্যাট ২০২১ সাল পর্যন্ত ১০ শতাংশ হারে বৃদ্ধির পাশাপাশি ২০২১ সালের পর প্রস্তাবিত ১৫ শাতাংশ ভ্যাটকে অতিক্ষুদ্র ও ক্ষুদ্র ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের জন্য ৩ শতাংশ, মাঝারি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের জন্য ৫শতাংশ এবং বৃহৎ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের জন্য ৭ শতাংশ করার প্রস্তাব করা হয়।

ডিসিসিআই সভাপতি হোসেন খালেদ বলেন, ঢাকা চেম্বারের প্রস্তাবে এনবিআর সীমিতভাবে হলেও ট্যাক্স কার্ড প্রদান শুরু করেছে। ট্যাক্স কার্ডকে স্মার্ট কার্ডে রপান্তরের প্রস্তাব করেন।

এছাড়াও কর্পোরেট কর হার ৪৫ শতাংশ থেকে হ্রাস করে ৩৫ শতাংশ করা এবং মার্চেন্ট ব্যাংকের ক্ষেত্রে কর্পোরেট কর হার ৩৭.৫ শতাংশ থেকে হ্রাস করে ৩৫ শতাংশ করার প্রস্তাব করা হয় ডিসিসিআইয়ের পক্ষ থেকে।

আলোচনায় ব্যবসায়ী নেতারা বিদ্যুৎ খাতের উন্নয়নের ব্যাপারে গুরুত্বারোপ করলে অর্থমন্ত্রী বলেন, বিদ্যুতের ট্রান্সমিশন ও ডিস্ট্রিবিউশন ব্যবস্থা এখনো দুর্বল। বিদ্যুৎকেন্দ্রে আমদানিকৃত কয়লার পরিবর্তে দেশীয় কয়লা ব্যবহার করার কথা বললে অর্থমন্ত্রী বলেন, ফুলবাড়িতে মাইনিং করে কয়লা উৎপাদনের জন্য আমরা অনেক চেষ্টা করেছি। কিন্তু এটা ভেরি ডিফিকাল্ট চয়েস। আর কিছু না হোক, এখান থেকে বহু লোক স্থানান্তরিত করতে হবে। তারচেয়ে প্রধানমন্ত্রী কয়লা আমদানির যে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন সেটাই ভালো।

আলোচনায় ডিসিসিআই প্রতিনিধি দলে ছিলেন সংগঠনটির সভাপতি হোসেন খালেদ। ঊর্ধ্বতন সহ-সভাপতি হুমায়ুন রশিদ, সহ-সভাপতি খ. আতিক-ই-রাব্বানী, পরিচালক এ কে ডি খায়ের মোহাম্মদ খান, কামরুল ইসলাম, মামুন আকবর, মোক্তার হোসেন চৌধুরী, ওসমান গনি, রিয়াদ হোসেন, সেলিম আকতার খান এবং ডিসিসিআই মহাসচিব রেজাউল কবির প্রমুখ।

You Might Also Like