বোল্টের দুঃসংবাদ!

কেড়ে নেওয়া হতে পারে বজ্রবিদ্যুৎ উসাইন বোল্টের অলিম্পিক স্বর্ণ। সদ্যই ‘ট্রিপল ট্রিপল’ স্বর্ণ জয়ের ইতিহাস গড়া এই জ্যামাইকানের জন্য এটা বড় দুঃসংবাদ।

২০০৮ সালে বেইজিং অলিম্পিকে স্বর্ণপদক জেতেন উসাইন বোল্ট। দলগত ইভেন্টে তার সতীর্থ ছিলেন আরেক জ্যামাইকান নেস্তা কার্টার। সম্প্রতি এই স্প্রিন্টারের বিরুদ্ধে ডোপিংয়ের অভিযোগ উটেছে। আর অভিযোগ প্রমাণিত হলে দলের চার জনের স্বর্ণ পদকই কেড়ে নেওয়া হবে।

ডোপিংয়ের অভিযোগে কার্টারের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। তাতে স্যাম্পল ‘এ’ পরীক্ষায় নিজেকে প্রমাণিত করলেও অফিসিয়ালি আবারও নতুন করে তার নমুনা পরীক্ষা করা হবে। স্যাম্পল ‘বি’ তে যদি নিষিদ্ধ ড্রাগ ধরা পড়ে তাহলে বেইজিং অলিম্পিকের পাওয়া স্বর্ণ নিয়ে নেবে ইন্টারন্যাশনাল অলিম্পিক কমিটি (আইওসি)।

সেই সঙ্গে নির্বাসিত হতে পারেন কার্টার। আর সেটা হলে সর্বনাশ হবে বোল্টেরও।

এর আগে ১০০ মিটারের পর ২০০ মিটার স্প্রিন্টেও (দৌড়ে) টানা তিন অলিম্পিকে স্বর্ণ জয়ের অনন্য রেকর্ড গড়েন ২৯ বছর বয়সী স্প্রিন্টার বোল্ট। ৪*১০০ মিটার রিলের ইভেন্টে গোল্ড মেডেল হাতে তুলেই তার ‘ট্রিপল ট্রিপল’ স্বপ্নটাও পূরণ হয়ে যায়। বাংলাদেশ সময় শনিবার (২০ আগস্ট) সকালেই অবিশ্বাস্য এ কীর্তিটিরও সাক্ষী হয় ক্রীড়াবিশ্ব। অনন্য কীর্তিটি গড়ার পর তাকে দুঃসংবাদই শুনতে হয়েছে।

২০০৮ বেইজিং ও ২০১২ লন্ডন অলিম্পিকে ১০০, ২০০ ও ৪০০ মিটার দৌড়ে সেরার আসনে বসেছিলেন কালজয়ী এ ক্রীড়াবিদ। এখন পর্যন্ত বোল্টের অলিম্পিক গোল্ড মেডেলের সংখ্যা ৯টি।

You Might Also Like