বিশ্বকাপের পাঁচ তারা

আসন্ন ২০১৯ বিশ্বকাপই তাদের প্রথম বিশ্বকাপ আসর। কিন্তু ফর্ম আর অভিজ্ঞতায় তারা ছাড়িয়ে যেতে পারেন সিনিয়র ক্রিকেটারদেরও। ইতোপূর্বে কোন বিশ্বকাপ খেলার সৌভাগ্য হয়নি তাদের। এমন পাঁচ ক্রিকেটার থাকছেন এবার বিশ্বকাপ আসরে। যারা নিজেদের প্রথম বিশ্বকাপে ব্যাটিং-বোলিংয়ের কারিশমায় তারার ঝলক ছড়াতে পারেন মাঠে। দেখে নিই সেই পাঁচ তারকা কারা-

জাসপ্রিত বুমরাহ

যিনি বর্তমান আইসিসি ওয়ানডে র‌্যাংকিংয়ের নাম্বর ওয়ান বোলার। ২০১৬ সালে ভারতের হয়ে জাতীয় দলে অভিষেক ঘটে পেসার জাসপ্রিত বুমরাহর। ২৫ বছর বয়সী এই ক্রিকেটার ভারতের হয় এখন পর্যন্ত খেলেছেন ৪৯ ওডিআই ম্যাচ। ৪.৫১ ইকোনোমি রেটে নিয়েছেন ৮৫ উইকেট। ডেথ ওভারের জন্য প্রমাণিত সফল বোলার তিনি। এই ইয়ার্কার মাস্টার ২০১৮ সালে ভারতের হয়ে ১৩ ওডিআইতে ৩.৫২ ইকোনোমি রেটে ১৩ ম্যাচে নিয়েছেন ২২ উইকেট। আসন্ন বিশ্বকাপে বুমরাহ সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি হলেও আশ্চর্য হওয়ার কিছ নেই।

শিমরণ হেটমায়ার

ওয়েস্ট ইন্ডিজ জাতীয় দলের হয়ে ২০১৭ সালে অভিষেক হয় এই ব্যাটসম্যানের। ২৪ ওডিআইতে ৪টি সেঞ্চুরি ও ২টি অর্ধশতকসহ ৪০.৮৬ গড়ে করেছেন ৮৯৯ রান। স্ট্রাইক রেট ১১০.৩১। এই বিধ্বংসী ব্যাটসম্যান চমক দেখাতে পারেন তার প্রথম বিশ্বকাপেই।

জিয়ে রিচার্ডসন

২০১৭ সালে অভিষেক হওয়ার পর অস্ট্রেলিায়ার হয়ে খেলেছেন ১২টি ওডিআই ম্যাচ। এতেই বাজিমাত করেছেন এই বোলার। ১২ ওয়ানেডেতে ৫.৮৫ ইকোনোমি রেটে নিয়েছেন ২৪ উইকেট। এটাই তার প্রথম বিশ্বকাপ। বর্তমান ক্রিকেট বিশ্বের সেরা ব্যাটসম্যান বিরাট কোহলিকে সর্বশেষ ভারতে সফরে তিন বার ডিসমিসাল করেছেন এই বোলার। তার বোলিং সমার্থ নিয়ে হয়তো আর কিছু বলার নেই। বলের সুইং এবং ঘণ্টায় ১৪০ কি.মি. বেগ স্পিড বোলিং করা বিশ্বকাপে অস্ট্রেলিয়ার হয়ে চমক দিতে পারেন জিয়ে রিচার্ডসন। অভিজ্ঞ পেসার মিচেল স্টার্কও পাবেন ভালো একজন বোলিং পার্টনার।

বাবর আজম

পাকিস্তান জাতীয় দলের জার্সি গায়ে অভিষেক হয় ২০১৫ সালে। দলে জায়গা পাওয়ার পর থেকে সেরা পারফর্ম করে নজর কেড়েছেন বাবর। তাই কোচ মিকি আর্থার আসন্ন বিশ্বকাপে দলের সেরা ব্যাটসম্যান উপাধি দিয়ে বাবরের উপরেই আস্থার কথা জানিয়েছেন। ২০১৭ সালে ২১ ইনিংসে ১০০ রান করে ওডিআইতে ভেঙে দিয়েছেন নিজের আইডল বিরাট কোহলির দ্রুততম ১ হাজার রান করার রেকর্ড। এখন পর্যন্ত এই টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান ৫১.২৯ গড়ে ৫৯ ম্যাচে করেছেন ২ হাজার ৫০০ রান। বর্তমার ওডিআই র‌্যাংকিংয়ে অবস্থান করছেন সেরা দশের সাত নাম্বার ব্যাটসম্যান হিসেবে। টি-টোয়েন্টিতে রয়েছেন এক নাম্বারে। টি-টোয়েন্টিতেও বাবর আজম ভাঙেন বিরাট কোহলির দ্রুততম এক হাজার রান পূর্ণ করার রেকর্ড। তরুণদের মাঝে অভিজ্ঞতাসম্পন্ন এই ব্যাটসম্যান হতে পারেন বিশ্বকাপে টাপ রান স্কোরারও।

রশিদ খান

২০১৫ সালে আফগানিস্তানের হয়ে জাতীয় দলে তার উদয় হয়। জাতীয় দলের জার্সি গায়ে এখন পর্যন্ত ৫৬ অডিআইতে ৫৪ ইনিংসে ৩.৯১ ইকোনোমি রেটে নিয়েছেন ১২৩ উইকেট। ব্যাট হাতে ৪টি অর্ধশতকসহ ৪২ ইনিংসে করেছেন ৭৮২ রান। আইসিসি ওয়ানডে র‌্যাংকিংয়ে সেরা দশে অবস্থান করছেন তিন নাম্বারে। টি-টোয়েন্টিতে রয়েছেন এক নাম্বার বোলার হিসেবে। ওডিআই অলরাউন্ডার র‌্যাংকিংয়েও রয়েছেন ১ নাম্বার পজিশনে। বিশ্বকাপে এই লেগ স্পিনার একাই ধস নামিয়ে দিতে পারেন বিপক্ষ দলের ব্যাটিং লাইন আপে ।

এই পাঁচ ক্রিকেটার আলোর দ্যুতি ছড়াতে পারেন মাঠে।

You Might Also Like