বিরোধী নেতা-কর্মী নির্মূলে মরিয়া হয়ে উঠেছে সরকার : খালেদা জিয়া

সরকারকে জবরদখলকারী উল্লেখ করে সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া বলেছেন, রাষ্ট্রীয় ক্ষমতা জোর জবরদখলকারী বর্তমান গণবিচ্ছিন্ন সরকার তাদের বেসামাল অবস্থাকে সন্ত্রাসী কায়দায় সামাল দেয়ার জন্যই বিরোধী দলের নেতাদের কারাগারে আটকিয়ে রাখতে চাইছে।

তিনি বলেন, এই অবৈধ সরকারের পতনের ঘন্টা বেজে গেছে এটা টের পেয়েই নানাভাবে নানা কায়দায় বিরোধী দলকে নির্মূল করার জন্য মরিয়া হয়ে উঠেছে। দেশের বিভিন্ন জনপদে রক্ত ঝরানো এই অবৈধ সরকারের প্রধান কর্মসূচি হয়ে দাঁড়িয়েছে।

রোববার দলটির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারীর প্রতিবাদে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে তিনি এসব কথা বলেন।

গ্রেফতারি পরোয়ানার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করে সাবেক প্রধানমন্ত্রী বলেন, বর্তমান অবৈধ সরকার বিরোধী দলকে নির্মূল করে একদলীয় শাসনকে একটা শক্ত ভিত্তির ওপর দাঁড় করাতেই নিরবচ্ছিন্নভাবে চক্রান্তজাল বুনে যাচ্ছে। মিথ্যা মামলায় জড়িয়ে চার্জশিটে নাম অন্তর্ভূক্ত করে বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলামের বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারী সেই চক্রান্তেরই অংশ।

বিরোধী নেতা-কর্মীদের ওপর সরকারের নির্যাতনের সমালোচনা করে বেগম খালেদা জিয়া বলেন, দেশব্যাপী জনগণের মধ্যে আতংক সৃষ্টির জন্য হত্যা, গুপ্তহত্যা, জখম, গুম, অপহরণের মতো ভয়ংকর মানবতাবিরোধী ঘটনার পাশাপাশি বিরোধী দলের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ যাতে মুখ খুলতে না পারে সেজন্য তাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়ের করছে। গ্রেফতারের মাধ্যমে কারাগারে বন্দী করে রাখা হচ্ছে। এ মানবতাবিরোধী কাজে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ও নিজ দলীয় সন্ত্রাসীদের ব্যবহার করা হচ্ছে।

সরকার কন্ঠরোধ করতে চাইছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, বর্তমান অবৈধ সরকার কর্তৃক এই সমস্ত ভয়ংকর অপরাধ সংঘটনের ধারাবাহিকতায় মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ বিএনপির গুরুত্বপূর্ণ নেতৃবৃন্দকে মিথ্যা মামলায় জড়ানো হচ্ছে। এটি করার একমাত্র উদ্দেশ্য হচ্ছে বিরোধী দলের নেতৃবৃন্দের কন্ঠরোধ করা যাতে নব্য বাকশালী দু:শাসনের বিরুদ্ধে কেউ আওয়াজ করতে না পারে।

খালেদা জিয়া বলেন, বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিবের বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারী করে সরকারের সৃষ্ট বিদ্যমান অশুভ অরাজক রাজনীতি বহাল রেখে অবৈধভাবে ক্ষমতাসীনরা নিজেদের দুঃশাসনকে দীর্ঘায়িত করতে চায়।

বিএনপি চেয়ারপারসন অবিলম্বে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মামলা এবং তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছেন।

You Might Also Like