বিভক্তির গুরু মোদি : টাইম

যুক্তরাষ্ট্রের প্রভাবশালী টাইম ম্যাগাজিনের প্রচ্ছদে মোদিকে উপস্থাপন করা হয়েছে ভারতের বিভক্তির প্রধান হিসেবে। প্রচ্ছদ নিবন্ধে নরেন্দ্র মোদিকে বিদ্ধ করা হয়েছে দেশে ‘বিষাক্ত ধর্মীয় জাতীয়তাবাদ’ছড়ানোর অভিযোগ তুলে। যুক্তরাষ্ট্র ছাড়া আর সবগুলো সংস্করণে এই প্রচ্ছদ ব্যবহার করেছে পত্রিকাটি।

পত্রিকাটির ২০ মে সংখ্যার প্রচ্ছদে যে মোদির ছবি দেয়া হয়েছে সেখানে দৃষ্টিতে বিষণ্ণতা, গলায় গেরুয়া চাদর। হেডলাইন— ‘ইন্ডিয়া’জ ডিভাইডার ইন চিফ’(ভারতে বিভক্তির গুরু)।

সাহিত্যক আতিশ তাসের লিখেছেন মূল প্রবন্ধ যার শিরোনাম, ‘বিশ্বের সবচেয়ে বড় গণতন্ত্রের দেশটি আরো পাঁচ বছর মোদি সরকারকে সহ্য করবে?’

টাইম’অভিযোগ করেছে, মোদি সরকারের পাঁচ বছরে ভারতের যুক্তরাষ্ট্রীয় ব্যবস্থাকে ধ্বংস করা হয়েছে। ধর্মনিরপেক্ষতা, উদার নীতি ও স্বাধীন সংবাদমাধ্যম— ভারতীয় রাষ্ট্রগঠনের তিনটি প্রধান সুরকেই নাকচ করে দেওয়া হয়েছে।

এই প্রচ্ছদ নিয়ে আলোচনা-সমালোচনার ঝড় উঠেছে ভারতীয় রাজনীতিতে।

কংগ্রেসের মুখপাত্র রণদীপ সিংহ সুরজেওয়ালা টুইটে বলেন, ‘ভাগ করে শাসন করার নীতি মোদিরও। কংগ্রেস ব্রিটিশ শাসকদের ভাগিয়েছে, এবার মোদির শাসনকেও তাড়াবে।’

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, ‘ঠিকই লিখেছে ‘টাইম’ পত্রিকা। গোরক্ষা ছাড়া, দাঙ্গা ছাড়া ওঁর মাথায় কিচ্ছু ঢোকে না।’

তবে দ্বিতীয় আরেকটি প্রবন্ধে ইয়ান ব্রেমার মোদিকে ভারতীয় অর্থনীরি সংস্কারের জন্য ইতিবাচক চরিত্র হিসেবে তুলে ধরেছেন।

You Might Also Like