হোম » বাস্তববাদী মানুষ ফেসবুকে বেশি সময় ব্যয় করে

বাস্তববাদী মানুষ ফেসবুকে বেশি সময় ব্যয় করে

ঢাকা অফিস- Saturday, November 25th, 2017

নতুন এক গবেষণায় দেখা গেছে, বাস্তববাদীরা ফেসবুকে অনেক বেশি সময় ব্যয় করে।

এই গবেষণার ফলাফল অনুযায়ী বাস্তববাদী মানুষরা ঘন ঘন ফেসবুকে ঢু মারে এবং তারা অনেক তীব্রভাবে ফেসবুকের প্রতি আকৃষ্ট। বাস্তববাদীরা তাদের অনলাইন বন্ধুদেরকে ‘ডিজিটাল বস্তু’ হিসেবে বিবেচনা করে এবং তাদের সঙ্গীদের সঙ্গে নিজেদের তুলনা করার সামাজিক নেটওয়ার্কিং ওয়েবসাইটগুলোর অধিকতর প্রয়োজনীয়তা বোধ করে।

গবেষণায় আরো দেখা গেছে যে, অধিকার সম্পর্কে কম সচেতন মানুষদের তুলনায় এদের বন্ধুর সংখ্যাও অনেক বেশি। বাস্তববাদী মানুষেরা ফেসবুক ব্যবহার করে তাদের লক্ষ্য অর্জন এবং ভালো বোধ করার জন্য।

জার্মানির রুহর-বিশ্ববিদ্যালয় বোকাম পরিচালিত এই গবেষণার প্রধান গবেষক অধ্যাপক ফিলিপ ওজিমেক বলেন, বাস্তববাদী মানুষেরা অনেক বেশি ফেসবুক ব্যবহার করে কারণ তারা তাদের ফেসবুক বন্ধুদেরকে নিজেদের সম্পর্কে প্রতিনিয়ত অবহিত করতে চায়। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে নিজেদের অবস্থানকে জোরদার করার জন্য তারা ফেসবুকে বন্ধুর সংখ্যা বাড়াতে সদা তৎপর।

তার মতে, ফেসবুক সামাজিক প্রতিযোগিতার জন্য নিখুঁত একটি প্ল্যাটফর্ম। কারণ এতে রয়েছে লাখ লাখ প্রোফাইল এবং লাখ লাখ মানুষের গুরুত্বপূর্ণ তথ্য, তাও আবার সম্পূর্ণ বিনামূল্যে। বাস্তববাদীরা এমন মাধ্যমকেই বেশি পছন্দ করে যেখানে কোনো টাকা খরচ করতে হয় না।

এই গবেষণায় প্রথমে ২৪২ জন ফেসবুক ব্যবহারকারীদের উপর বিভিন্ন প্রশ্নাবলির আলোকে একটি অনলাইন জরিপ চালানো হয়। গবেষণায় অংশগ্রহণকারীদের কাছে তাদের ফেসবুক কার্যকলাপ, সামাজিক তুলনা, বাস্তববাদীতা, ফেসবুক ব্যবহারের উদ্দেশ্য এবং ফেসবুক বন্ধুদের সঙ্গে আভ্যন্তরীণ যোগাযোগের উপর প্রশ্ন করা হয়।

জরিপের ফলাফলে দেখা যায় যে, বাস্তববাদী এবং ফেসবুক কার্যকলাপের মধ্যে একটি শক্তিশালী সংযোগ রয়েছে। তাদের ফেসবুকে বন্ধুর সংখ্যাও বেশি এবং তারা বন্ধুদের সঙ্গে অনেক তীব্র এবং নিখুঁতভাবে যোগাযোগ রক্ষা করে।

ওজিমেক বলেন, সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মগুলো জীবনের অন্যান্য কর্মকান্ড থেকে ভিন্ন কিছু নয়- এরা এমন ব্যক্তিদের জন্যই কার্যকরী সরঞ্জাম হিসেবে কাজ করে যারা জীবনের লক্ষ্য অর্জন করতে চায়।

তিনি বলেন, আমরা দেখেছি যে বাস্তববাদীরা তাদের বন্ধুবান্ধবদের সাহায্য করে, কিন্তু তারা একই সঙ্গে অন্যদের সঙ্গে নিজেদের তুলনা করার তাদের নিজেদের লক্ষ্যও অর্জন করে।

তথ্যসূত্র : গেজেটস নাউ