হোম » বাংলাদেশের হাতেই লাগাম, জয়ের সম্ভাবনা!

বাংলাদেশের হাতেই লাগাম, জয়ের সম্ভাবনা!

ঢাকা অফিস- Monday, August 28th, 2017

অস্ট্রেলিয়াকে ২১৭ রানে বেঁধে রাখা, প্রথম ইনিংসে ৪৩ রানের লিড, ৫ উইকেট নিয়ে সাকিবের রেকর্ড- সব মিলিয়ে দ্বিতীয় দিনেও ঢাকা টেস্টের লাগাম বাংলাদেশের হাতেই। শেষ বেলায় সৌম্য সরকার আত্মঘাতী শটে আউট না হলে দিনটা হতে পারত আরো ভালো!

সোমবার দ্বিতীয় দিন শেষে দ্বিতীয় ইনিংসে বাংলাদেশের সংগ্রহ ১ উইকেটে ৪৫ রান। তামিম ইকবাল ৩০ ও নাইটওয়াচম্যান হিসেবে নামা তাইজুল ইসলাম শূন্য রানে অপরাজিত আছেন। ৯ উইকেট হাতে নিয়ে বাংলাদেশ এগিয়ে ৮৮ রানে।

অস্ট্রেলিয়াকে উইকেট উপহার দিলেন সৌম্য: দিনের খেলা শেষ হতে বাকি দুই ওভার। দিনটা কাটিয়ে দেওয়াই যেখানে আসল লক্ষ্য, সেখানে সৌম্য সরকার আউট হলেন আত্মঘাতী শট খেলে। স্পিনার অ্যাশটন অ্যাগারের ফ্লাইট দেওয়া বল বেরিয়ে এসে উড়িয়ে মারলেন সৌম্য। লং অনে চারবারের চেষ্টায় ক্যাচ নিলেন উসমান খাজা। সৌম্য (১৫) অস্ট্রেলিয়াকে উইকেট উপহার দেওয়ার সময় বাংলাদেশের সংগ্রহ ১ উইকেটে ৪৩ রান।

২১৭ রানে শেষ অস্ট্রেলিয়া: জশ হ্যাজেলউডকে ফিরিয়ে অস্ট্রেলিয়ার ইনিংস গুটিয়ে দিয়েছেন সাকিব আল হাসান। ৭৪.৫ ওভারে ২১৭ রানেই অলআউট হয়েছে অস্ট্রেলিয়া। ৪১ রানে অপরাজিত ছিলেন অ্যাশটন অ্যাগার। নিজেদের প্রথম ইনিংসে ২৬০ রান করা বাংলাদেশ পেয়েছে ৪৩ রানের মূল্যবান লিড।

বাংলাদেশের বিপক্ষে টেস্টে এটাই অস্ট্রেলিয়ার সর্বনিম্ন স্কোর। আগের সর্বনিম্ন ছিল ২৬৯ রান, ২০০৬ সালে ফতুল্লায়।

৬৮ রানে ৫ উইকেট নিয়েছেন সাকিব আল হাসান। মেহেদী হাসান মিরাজ ৬২ রানে নিয়েছেন ৩ উইকেট। আরেক স্পিনার তাইজুল নিয়েছেন একটি উইকেট।

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে প্রথমবার পাঁচ উইকেট নিয়ে দারুণ এক কীর্তি গড়েছেন সাকিব। মাত্র চতুর্থ ক্রিকেটার হিসেবে টেস্ট খেলুড়ে সব দেশের বিপক্ষের ইনিংসে পাঁচ উইকেট নিলেন বাংলাদেশের অলরাউন্ডার। তার আগে এই কীর্তি ছিল কেবল দক্ষিণ আফ্রিকার ডেল স্টেইন এবং শ্রীলঙ্কার মুত্তিয়া মুরালিধরন ও রঙ্গনা হেরাথের।
কামিন্সকে ফেরালেন সাকিব: চা বিরতির পর প্যাট কামিন্সকে ফিরিয়ে ৪৯ রানের নবম উইকেট জুটি ভেঙেছেন সাকিব আল হাসান। বোল্ড হওয়ার আগে কামিন্স করেছেন ২৫ রান।

১০ মিনিট পর খেলা শুরু: চা বিরতির সময় মিরপুরে বৃষ্টি নেমেছিল। বিরতি শেষে ১০ মিনিট পর আবার খেলা শুরু হয়েছে। বাংলাদেশের লিড নিতে হলে অস্ট্রেলিয়াকে গুটিয়ে দিতে হবে দ্রুতই।

মিরপুরে বৃষ্টির বাগড়া: চা বিরতির সময় মিরপুরে বৃষ্টি বাগড়া দিয়েছে। উইকেট ও আউটফিল্ড ত্রিপলে ঢেকে দেওয়া হয়েছে। বিরতির পর খেলা শুরু হতে তাই দেরি হচ্ছে।

কামিন্স-অ্যাগারের প্রতিরোধ: বাংলাদেশের লিড নেওয়ার পথে বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছেন প্যাট কামিন্স ও অ্যাশটন অ্যাগার। চা বিরতি পর্যন্ত দুজন নবম উইকেটে ৪৯ রানের জুটিতে অবিচ্ছিন্ন আছেন। অস্ট্রেলিয়ার সংগ্রহ ৮ উইকেটে ১৯৩ রান। কামিন্স ২৫ ও অ্যাগার ২২ রানে অপরাজিত আছেন। ২ উইকেট হাতে নিয়ে বাংলাদেশের থেকে ৬৭ রানে পিছিয়ে আছে সফরকারীরা।
কামিন্সকে জীবন দিলেন শফিউল: এক বল আগেই সাকিবকে ছক্কা মেরেছিলেন প্যাট কামিন্স। এক বল পর আবার উড়িয়ে মারতে গেলেন। কিন্তু বল উঠে গেল আকাশে। সুইপার কাভার থেকে দৌড়ে এসে বল হাতে নিয়েছিলেন শফিউল ইসলাম, কিন্তু ধরে রাখতে পারেননি। ১১ রানে জীবন পান কামিন্স।

সাকিবের স্পিনে বিভ্রান্ত ম্যাক্সওয়েল: সাকিবের বলে উইকেট থেকে বেরিয়ে এসে খেলতে চেয়েছিলেন গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। কিন্তু সাকিবের ঝুলিয়ে দেওয়া বলে বিভ্রান্ত হয়ে মুশফিকের হাতে স্টাম্পড হয়েছেন অস্ট্রেলিয়ান ব্যাটসম্যান। ইনিংসে এটি সাকিবের তৃতীয় শিকার। ম্যাক্সওয়েল ২৩ রান করে ফেরার সময় অস্ট্রেলিয়ার সংগ্রহ ৮ উইকেটে ১৪৪!
লাঞ্চের পরই ওয়েডকে ফেরালেন মিরাজ: লাঞ্চ বিরতির পর প্রথম ওভারেই ম্যাথু ওয়েডকে ফিরিয়েছেন মেহেদী হাসান মিরাজ। অফ স্পিনারের বলে এলবিডব্লিউ হওয়ার আগে ওয়েড করেছেন ৫। ম্যাক্সওয়েলের সঙ্গে আলোচনা করে শেষ পর্যন্ত রিভিউ নেননি ওয়েড। কিন্তু টিভি রিপ্লেতে দেখা গেছে, রিভিউ নিলে বেঁচে যেতেন তিনি! মিরাজের বলটা বাঁহাতি ব্যাটসম্যানের লেগ স্টাম্প মিস করেছে। ওয়েডের বিদায়ের সময় অস্ট্রেলিয়ার সংগ্রহ ৭ উইকেটে ১২৪ রান।

প্রথম সেশন বাংলাদেশের, বিপদে অস্ট্রেলিয়া: দ্বিতীয় দিনের প্রথম সেশনটা নিজেদের করে নিয়েছে বাংলাদেশ। দিনের শুরুতেই বিপজ্জনক স্টিভ স্মিথকে ফিরিয়ে অস্ট্রেলিয়াকে বড় ধাক্কা দিয়েছিলেন মেহেদী হাসান মিরাজ। পঞ্চম উইকেটে ম্যাট রেনশ ও পিটার হ্যান্ডসকম্বের পঞ্চাশোর্ধ জুটিটা বাংলাদেশের গলার কাঁটা হয়ে গিয়েছিল। লাঞ্চের আগে এই দুজনকে ফিরিয়ে সেই কাঁটা সরিয়েছেন তাইজুল ইসলাম ও সাকিব আল হাসান। লাঞ্চের আগে ১২৩ রানেই ৬ উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়েছে অস্ট্রেলিয়া। ৪ উইকেট হাতে নিয়ে বাংলাদেশের থেকে এখনো ১৩৭ রানে পিছিয়ে আছে সফরকারীরা।
ফিরেই রেনশকে ফেরালেন সাকিব: আক্রমণে এসেই এক প্রান্ত আগলে রাখা ম্যাট রেনশকে ফিরিয়েছেন সাকিব আল হাসান। লাঞ্চের আগে শেষ ওভারে সাকিবের প্রথম বলেই প্রথম স্লিপে সৌম্য সরকারের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন বাঁহাতি ওপেনার (৪৫)। দ্বিতীয়বারের চেষ্টায় ক্যাচ তালুবন্দি করেন সৌম্য। অস্ট্রেলিয়ার সংগ্রহ তখন ৬ উইকেটে ১১৭।

কাঁটা সরালেন তাইজুল: পঞ্চম উইকেটে ম্যাট রেনশ ও পিটার হ্যান্ডসকম্বের পঞ্চাশোর্ধ জুটিটা বাংলাদেশের গলার কাঁটা হয়ে গিয়েছিল। হ্যান্ডসকম্বকে ফিরিয়ে সেই কাঁটা সরিয়েছেন তাইজুল ইসলাম। বাঁহাতি স্পিনারের বলে এলবিডব্লিউ হয়েছেন ডানহাতি ব্যাটসম্যান (৩৩)। তার বিদায়ে ভাঙে ৬৯ রানের জুটি। অস্ট্রেলিয়ার সংগ্রহ তখন ৫ উইকেটে ১০২। এক প্রান্তে ৪২ রানে অপরাজিত ওপেনার রেনশ।
রেনশ-হ্যান্ডসকম্বে প্রতিরোধ: ৩৩ রানে ৪ উইকেট হারানোর পর ম্যাট রেনশ ও পিটার হ্যান্ডসকম্বের ব্যাটে প্রতিরোধ গড়েছে অস্ট্রেলিয়া। পঞ্চম উইকেটে দুজন পঞ্চাশোর্ধ রানের জুটি গড়েছেন।

রিভিউ নিয়ে বাঁচলেন রেনশ: ইনিংসের ১৬তম ওভারে মিরাজের বলে ম্যাট রেনশকে ক্যাচ আউট দিয়েছিলেন আম্পায়ার। কিন্তু রিভিউ নিয়ে বেঁচে যান অস্ট্রেলিয়ান ওপেনার। বল তার ব্যাটের স্পর্শ ছাড়াই প্যাডে লাগে। এলবিডব্লিউও হয়নি বলটি স্টাম্পের বাইরে ছিল বলে।
বিপজ্জনক স্মিথকে ফিরিয়ে শুরু: আগের দিনই সাকিব আল হাসান বলেছিলেন, তাদের সামনে বড় বাধা এখন স্টিভ স্মিথ। সেই বিপজ্জনক স্মিথকে দ্বিতীয় দিনের শুরুতেই সাজঘরে ফিরিয়েছেন মেহেদী হাসান মিরাজ। অফ স্পিনারের বল এগিয়ে এসে খেলতে গিয়ে বোল্ড হয়েছেন অসি অধিনায়ক (৮)। অস্ট্রেলিয়ার সংগ্রহ তখন ৪ উইকেটে ৩৩।

এগিয়ে বাংলাদেশ: ঢাকা টেস্টের প্রথম দিন শেষে কিছুটা এগিয়ে আছে বাংলাদেশ। প্রথম দিনে মোট ১৩ উইকেটের পতন হয়েছে। ১০ রানেই ৩ উইকেট হারানো বাংলাদেশ প্রথম ইনিংসে করেছে ২৬০ রান। জবাবে দিন শেষে অস্ট্রেলিয়ার সংগ্রহ ৩ উইকেটে ১৮ রান। ম্যাট রেনশ ৬ ও অধিনায়ক স্টিভ স্মিথ ৩ রান নিয়ে মিরপুরে সোমবার দ্বিতীয় দিন শুরু করেন। ২৪২ রানে পিছিয়ে থাকা সফরকারীদের জন্য কঠিন চ্যালেঞ্জই অপেক্ষা করছে।