বাংলাদেশসহ চারটি দেশের শান্তিরক্ষীর বিরুদ্ধে যৌন নির্যাতনের অভিযোগ

জাতিসংঘ শান্তিরক্ষী বাহিনীর যে সদস্যদের হাতে শিশুরা যৌন নির্যাতনের শিকার হয়েছে, তাদের মধ্যে বাংলাদেশসহ চারটি দেশের সৈনিকরা রয়েছে বলে জানিয়েছে জাতিসংঘ।
এই প্রথম জাতিসংঘ এসব সৈনিকের জাতীয়তা প্রকাশ করলো।
জাতিসংঘ বলছে, সেন্ট্রাল আফ্রিকান রিপাবলিকে শিশুদের ওপর যৌন নিপীড়নের এসব ঘটনায় বাংলাদেশ ছাড়াও কঙ্গো, নিজের এবং সেনেগালের শান্তিরক্ষীরাও জড়িত ছিল।
মধ্য আফ্রিকান প্রজাতন্ত্রে শান্তিরক্ষীদের হাতে শিশুদের যৌন নির্যাতনের যে অভিযোগ উঠেছে সেটা সামাল দিতে হিমশিম খাচ্ছে জাতিসংঘ।
পরিস্থিতি মোকাবেলায় জাতিসংঘ যেভাবে সাড়া দিচ্ছে স্বাধীন ও নিরপেক্ষ একটি প্যানেল গত মাসে তার তীব্র সমালোচনা করে এটিকে ‘জাতিসংঘের ব্যর্থতা’ হিসেবে উল্লেখ করার পর এই প্রথমবারের মতো অভিযুক্ত শান্তিরক্ষীদের জাতীয়তা প্রকাশ করা হলো।
জাতিসংঘের সহকারী মহাসচিব এন্থনি ব্যানবারি এক সংবাদ সম্মেলনে সংস্থাটির বক্তব্য তুলে ধরতে গিয়ে অত্যন্ত আবেগপূর্ণ হয়ে উঠেন।
কান্নাজড়িত কণ্ঠে তিনি বলেন যে গত বছর সারা বিশ্বে জাতিসংঘের শান্তিরক্ষীদের হাতে যৌন হয়রানির অভিযোগ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬৯টি।
তার আগের বছরে অর্থাৎ ২০১৪ সালে এই সংখ্যা ছিলো ৫১।

Image caption
জাতিসংঘের একজন শান্তিরক্ষী
জাতিসংঘ বলছে, এসব অভিযোগের এক তৃতীয়াংশই এসেছে মধ্য আফ্রিকান প্রজাতন্ত্র থেকে।
আর যেসব সৈন্যের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে তারা এসেছেন বাংলাদেশ, গণতান্ত্রিক কঙ্গো প্রজাতন্ত্র, নিজের এবং সেনেগাল থেকে।
জাতিসংঘ বলছে, এই সমস্যা মোকাবেলায় সম্ভাব্য সবকিছুই করা হচ্ছে।
জাতিসংঘের কর্মকর্তারা বলছেন, ইউরোপিয়ান সৈন্যদের হাতেও ১৪ থেকে ১৬ বছর বয়সী বেশ কয়েকটি মেয়েকে নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে।
সাত এবং ন’বছর বয়সী দুটো মেয়ে-শিশুও অভিযোগ করেছে যে ফরাসী সৈন্যরা তাদেরকে নির্যাতন করেছে।
ফ্রান্স সরকার ফরাসী সৈন্যদের বিরুদ্ধে ওঠা এসব অভিযোগ তদন্ত করার নির্দেশ দিয়েছে। -বিবিসি

You Might Also Like