শিয়া মসজিদে হামলা, আইএসআইএল’র দায় স্বীকার

বগুড়া জেলার শিবগঞ্জের হরিপুরে শিয়া মুসলমানদের মসজিদে হামলার দায় স্বীকার করেছে তাকফিরি সন্ত্রাসীগোষ্ঠী আইএসআইএল বা দায়েশ।

জঙ্গি সংগঠনগুলোর তৎপরতা পর্যবেক্ষণকারী মার্কিন সংস্থা ‘সাইট ইন্টেলিজেন্স গ্রুপ’ তাদের ওয়েব পোর্টালে বৃহস্পতিবার রাতে দাবি করেছে, আইএসআইএল ওই হামলার দায় স্বীকার করেছে।

বৃহস্পতিবার মাগরিবের নামাজের পর হরিপুর বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন আল মোস্তফা জামে মসজিদে মুখোশধারী দুর্বৃত্তদের গুলিতে মোয়াজ্জেম হোসেন (৬০) নামে একজন নিহত হয়েছেন। তিনি ওই মসজিদের মুয়াজ্জিন ছিলেন। এসময় মসজিদের ইমাম শাহিনুর ইসলামসহ ৪ জন গুলিবিদ্ধ হন।

মামলা দায়ের, আটক দুই

মসজিদে গুলির ঘটনায় অজ্ঞাতপরিচয় আসামিদের বিরুদ্ধে একটি মামলা হয়েছে। এছাড়া, জিজ্ঞাসাবাদের জন্য দুইজনকে আটক করেছে পুলিশ।

শিবগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আহসান হাবিব জানান, হামলার ঘটনার পর বৃহস্পতিবার রাতে মসজিদের কোষাধ্যক্ষ সোনা মিয়া থানায় ওই মামলা দায়ের করেন। মামলায় অজ্ঞাত পরিচয় কয়েকজনকে আসামি করা হয়েছে।

এদিকে, পুলিশ শুক্রবার ভোরের দিকে ওই এলাকা থেকে দুইজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে। এরা হলেন – সৈয়দ জামগড়া গ্রামের তোফাজ্জল হোসেনের ছেলে আনোয়ার হোসেন (৪৮) ও হরিপুরের আব্দুল মান্নানের ছেলে জুয়েল (২৫)।

মসজিদে হামলাকারীরা ‘সাচ্চা মুসলিম’ নয়: প্রধানমন্ত্রী

বগুড়ায় সন্ত্রাসী হামলার প্রতিক্রিয়ায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, “মসজিদে নামাজের সময় মানুষ খুন করা কোনো সাচ্চা মুসলমানের কাজ না… সুইসাইড করা কোনো সাচ্চা মুসলমানের কাজ না।”

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় গণভবনে আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী সংসদ ও পার্লামেন্টারি বোর্ডের বৈঠকের উদ্বোধনী বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন। গণভবনে প্রধানমন্ত্রীর এই বক্তব্যের ঠিক আগ মুহূর্তে বগুড়ার শিবগঞ্জে শিয়া মুসলিমদের মসজিদে দুর্বৃত্তরা মুসল্লিদের ওপর গুলি চালায়।

‘যারা ধর্মের নামে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড চালাচ্ছে, তারা বিকৃত মানসিকতার’ উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, “ধর্মের নামে মানুষ হত্যা করে, আত্মহত্যা করে ইসলাম ধর্মের মর্যাদা ক্ষুণ্ন করছে। এতে বিশ্বে মুসলমানদের জীবনযাত্রা অতিষ্ঠ করে তুলছে।”

ধর্মের নামে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড চালানো ব্যক্তিদের ‘উন্মাদ’ আচরণ ইসলামের বদনাম করছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি। এর বিরুদ্ধে বাংলাদেশের যুবসমাজসহ সবাইকে সোচ্চার হতেও তিনি আহ্বান জানান।

এক মাস আগে পুরান ঢাকার হোসেনী দালানের ইমামবাড়ায় আশুরার তাজিয়া মিছিলের প্রস্তুতির মধ্যে গ্রেনেড হামলায় দুইজন নিহত হন। ইমামবাড়ার ওই ঘটনার পরও সন্ত্রাসীগোষ্ঠী আইএসআইএল জড়িত বলে দাবি করেছিল ‘সাইট ইন্টিলিজেন্স গ্রুপ’। তবে সরকার বলে আসছে বাংলাদেশে আইএসআইএল নেই।

You Might Also Like