বখাটের ধর্ষণে অন্তঃসত্ত্বা প্রতিবন্ধী কিশোরী

চট্টগ্রামের পটিয়া উপজেলায় বুদ্ধি প্রতিবন্ধী এক হিন্দু মেয়েকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় কয়েকজন যুবকের বিরুদ্ধে। মেয়েটি বর্তমানে আট মাসের অন্তঃস্বত্ত্বা।

২০১৫ সালের ২১ জুন ধর্ষণের ঘটনা ঘটলেও বিষয়টি প্রকাশ পায় গত বছরের ৬ ডিসেম্বর। তার শারীরিক চিকিৎসা করালে ধরা পড়ে সে অন্তঃস্বত্ত্বা।

বুধবার সকাল সাড়ে ১১টায় চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে পটিয়ার সুচক্রদণ্ডী গ্রামের ভুক্তভোগী মেয়েটির পরিবার।

এতে অভিযোগ করা হয়, ধর্ষণের ব্যাপারে ছয় বখাটের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা হলেও এখনও কোনোরকম আইনি সহায়তা পায়নি তারা। উল্টো স্থানীয় কাউন্সিলর রূপক সেন মামলা তুলে নিতে তাদের চাপ দিচ্ছেন।

লিখিত বক্তব্যে মেয়েটির পরিবার জানান, ‘ভুক্তভোগী মেয়েটি প্রতিবন্ধী। তার বাবাও প্রতিবন্ধী। ভুক্তভোগীর মা প্রতিদিন সকালে বিভিন্ন বাসায় ঝি’র কাজ করতে বাইরে চলে যান। এ সুযোগে ২০১৫ সালের ২১ জুন এলাকার ছয় বখাটে পিয়াল দে, ইমন দে, জনি দে, রতন দে, সজীব দে ও নয়ন দে ঘরে ঢুকে জোরপূর্বক মেয়েটিকে ধর্ষণ করে। কিন্তু ধর্ষণের শিকার হলেও বিষয়টি তার মা জানতে পারেন গত বছরের শেষের দিকে। কারণ ওই সময় ঘন ঘন অসুস্থ হয়ে পড়লে তার শারীরিক পরীক্ষা করা হয়। এতে ধরা পড়ে অন্তঃস্বত্ত্বা হওয়ার বিষয়টি। এরপর ভুক্তভোগীর কাছে জিজ্ঞেস করলে সে জড়িত ছয়জনকে চিহ্নিত করে।

পরে চলতি বছরের ৪ জানুয়ারি চট্টগ্রাম নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে একটি মামলা করেন ভুক্তভোগী কিশোরীর মা। কিন্তু মামলা হওয়ার একমাস পার হলেও এখনও ধর্ষকরা গ্রেফতার হয়নি। উল্টো স্থানীয় কাউন্সিলর রূপক সেন জড়িতদের বাঁচাতে উঠে পড়ে লেগেছেন। স্থানীয়ভাবে বিষয়টি মীমাংসা করার জন্য চাপ দিচ্ছেন।’ অভিযোগ করা হয় লিখিত বক্তব্যে।

You Might Also Like