বক্তব্যের জন্য দুঃখ প্রকাশ করছি, চিকুনগুনিয়ার বিরুদ্ধে সর্বাত্মক যুদ্ধ শুরু হবে: মেয়র আনিসুল হক

‘চিকুনগুনিয়া মহামারি হোক আর যা-ই হোক, এর জন্য কোনোভাবেই সিটি কর্পোরেশন দায়ী নয়। আর বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে মশা মারা তাদের পক্ষে সম্ভব না।’- গতকাল শুক্রবার এক সংবাদ সম্মেলনে এমন মন্তব্যে করার পর ব্যাপক সমালোচনার মুখে আজ ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র আনিসুল হক দুঃখ প্রকাশ করেছেন। একইসাথে তিনি চিকুনগুনিয়ার বিরুদ্ধে আজ থেকে সর্বাত্মক যুদ্ধ ঘোষণা করেন।

আজ শনিবার গুলশান-২ নম্বরে ডিএনসিসি কার্যালয়ের সামলে মশক নিয়ন্ত্রণে সচেতনতামূলক র‍্যালির শুরুতে সাংবাদিকদের নিকট ব্যাখ্যা করে আনিসুল হক বলেন, ‘গতকাল একজন সাংবাদিক বন্ধু একটি প্রশ্ন করেছিলেন, আমরা মশারি নিয়ে সচেতনতা তৈরি করছি কি না? আমি আমাদের সচেতনতামূলক পোস্টারে মশারির ছবি দেখিয়ে ওই কথা বলেছিলাম। কিন্তু যেভাবে বলেছি, তা ঠিকভাবে বলতে পারিনি-হতে পারে।’

মেয়র বলেন, ‘আমরা বলতে চেয়েছি যে বাড়ির ভেতরে ঢোকার অধিকার আমাদের সেভাবে নেই। আমার বক্তব্যের জন্য কেউ যদি কষ্ট পেয়ে থাকেন, আমরা তার জন্য দুঃখিত। আমরা আমাদের সর্বাত্মক শক্তি দিয়ে আবার নেমেছি। আমরা অনেক চেষ্টা করছি।’

চিকুনগুনিয়া প্রতিরোধে এলাকাভিত্তিক বড় করে কাজ শুরু হয়েছে জানিয়ে আনিসুল হক আরও বলেন, ‘এখন আমরা যেভাবে পরিকল্পনা করছি, তাতে আজ গুলশান এলাকায়, পরে মোহাম্মদপুর এলাকায়—এভাবে একেক দিন একেক এলাকায় আমরা ছড়িয়ে পড়ব। যেভাবেই হোক চিকুনগুনিয়া আমরা আর বাড়তে দেব না। আমরা এর বিরুদ্ধে সর্বাত্মক যুদ্ধ ঘোষণা করছি।’ ওদিকে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র সাঈদ খোকন বলেছেন, চিকুনগুনিয়া এখনো মহামারী আকার ধারণ করেনি। আগামী ৩ থেকে ৪ সপ্তাহের মধ্যে ঢাকা দক্ষিন সিটি কর্পোরেশন এলাকায় চিকুনগুনিয়া নিয়ন্ত্রণে আসবে।

গতকাল নগর ভবনের সামনে চিকুনগুনিয়া প্রতিরোধে স্পেশাল ক্রাশ প্রোগ্রামের উদ্বোধনকালে মেয়র এসব কথা বলেন। মেয়র বলেন, চিকুনগুনিয়া মহামারী আকার ধারণ করেছে, তা বলা যাবে না। তবে নিয়ন্ত্রণে আনতে নাগরিকদের সচেতনতা জরুরি।

You Might Also Like