হোম » ফ্লোরিডায় হারিকেন আরমা আঘাতের পর বিদ্যুৎবিচ্ছিন্ন একটি নার্সিং হোমে ৮ জনের মৃত্যু

ফ্লোরিডায় হারিকেন আরমা আঘাতের পর বিদ্যুৎবিচ্ছিন্ন একটি নার্সিং হোমে ৮ জনের মৃত্যু

এখন সময় ডেস্ক- Thursday, September 14th, 2017

যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডা অঙ্গরাজ্যে হারিকেন আরমা আঘাত হানার পর কয়েকদিন ধরে বিদ্যুৎবিচ্ছিন্ন থাকা একটি নার্সিং হোমের ৮ বাসিন্দা মারা গেছেন। বুধবার পুলিশ ওই নার্সিং হোমের আরও ১১৫ বাসিন্দাকে সরিয়ে নিয়েছে বলে জানিয়েছে বিবিসি।

ঝড়ে নার্সিং হোমটির শীতাতপ নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা অকেজো হয়ে পড়ার সঙ্গে এদের মৃত্যুর সম্পর্ক থাকতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। মৃত্যুর কারণ উদঘাটনে তদন্ত শুরু করা হয়েছে।

বোয়ার্ড কাউন্টির মেয়র শেরিফ জানান, হলিউড শহরের ওই নার্সিং হোমের ভেতরেই তিনজনকে মৃত অবস্থায় পাওয়া যায়, বাকি ৫জন হাসপাতালে মারা যান।

আরমার তাণ্ডবে ফ্লোরিডা, জর্জিয়া ও সাউথ ক্যারোলাইনা অঙ্গরাজ্যের অন্তত এক কোটি মানুষকে এখনো বিদ্যুৎহীন অবস্থায় দিন কাটাতে হচ্ছে। রোববার সকালে ফ্লোরিডার দক্ষিণ-পশ্চিম উপকূলে চার মাত্রার ঝড় হয়ে আঘাত হানা আরমার কারণে এ পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রে দুই ডজনের বেশি লোক মারা গেছে।

আটলান্টিক মহাসাগর থেকে সৃষ্ট অন্যতম শক্তিশালী এই ঘূর্ণিঝড় যুক্তরাষ্ট্রের আগে ক্যারিবীয় অঞ্চলে তাণ্ডবলীলা চালিয়ে অন্তত ৪০ জনের প্রাণ নেয়।

হলিউড হিলসের যে নার্সিং হোমে বাসিন্দাদের মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে সেটি বন্ধ করে দেওয়ার কথা জানিয়েছেন শহরের পুলিশপ্রধান টমাস সানচেজ। এ নিয়ে তদন্ত শুরুর কথাও জানান তিনি।

এক বিবৃতিতে শহর কর্তৃপক্ষ জানায়, অ্যাটর্নি জেনারেলের ফ্লোরিডা দপ্তরের তদন্ত কর্মকর্তারাও ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়েছেন।

ঝড়ে বিদ্যুৎ চলে যাওয়ার সঙ্গে এই ঘটনার যোগ থাকতে পারে বলে জানিয়েছেন পুলিশপ্রধান সানচেজ। শহরের আরও ৪২টি অ্যাসিস্টেড লিভিং ফ্যাসিলিটিজে খোঁজ-খবর নেওয়া হচ্ছে বলেও জানান তিনি।

ফ্লোরিডার গভর্নর রিক স্কট রাজ্যের সব নার্সিং হোম ও অ্যাসিস্টেড লিভিং ফ্যাসিলিটিজে খোঁজ নিয়ে সেগুলোর বাসিন্দাদের নিরাপত্তা নিশ্চিতে ব্যবস্থা নিতে জরুরি কর্মীদের নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। “পরিস্থিতি এখনো ‍দুর্বোধ্য,” বলেন তিনি।

এক বিবৃতিতে শহর কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, বুধবার সকালে দমকল কর্মীরা যখন ওই নার্সিং হোমে যান, তখনি বেশ কয়েকজন রোগী ‘নানান মাত্রার চিকিৎসা সংকটে ভুগছিলেন’; তাৎক্ষণিকভাবে তাদের চিকিৎসা শুরু করা হয়। সেখানকার অনেক বাসিন্দা ঘুমাতে না পেরে অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন বলে স্থানীয় সংবাদমাধ্যম মিয়ামি হেরাল্ড জানিয়েছে।

নার্সিং হোমটির রান্নাঘরের কর্মী জেন লিন্ডর জানান, রান্নার জন্য একটি জেনারেটর চালানোর অনুমতি থাকলেও তা দিয়ে শীতাতপ কার্যক্রম চালানো সম্ভব ছিল না।

মঙ্গলবার হলিউডের তাপমাত্রা ৩২ সেলসিয়াসে পৌঁছায় বলে ন্যাশনাল ওয়েদার সার্ভিস জানিয়েছে। হলিউডের নার্সিং হোমে ৮ জনের মৃত্যুকে ‘অত্যন্ত দুঃখজনক’ঘটনা হিসেবে অ্যাখ্যা দিয়েছে ফ্লোরিডার হেলথ কেয়ার অ্যাসোসিয়েশন।