ফের রাজপথে হংকংয়ের গণতন্ত্রকামীরা

হংকংয়ে ফের সরকারবিরোধী বিক্ষোভে ফিরেছেন গণতন্ত্রকামীরা। নতুন বছরে এটাই তাদের প্রথম বিক্ষোভ-সমাবেশ। গণতন্ত্রের দাবিতে তারা স্থানীয় সময় শনিবার বিকালে বিশাল এক র‌্যালি বের করার ঘোষণা দিয়েছেন।

নতুন ওই ঘোষণার পর হংকংয়ের গুরুত্বপূর্ণ এলাকা দখল ঠেকাতে বিপুল সংখ্যক পুলিশের মোতায়েন করা হয়েছে। যদিও গণতন্ত্রকামীদের বিভিন্ন স্থান দখল ও পুরো শহর বিকল করে দেওয়ার পরিকল্পনার কথা জানা যায়নি।

নিজেদের ভূখণ্ডের প্রধান নির্বাহী নির্বাচিত করার জন্য পূর্ণ গণতান্ত্রিক নির্বাচনের দাবিতে গত বছর থেকে বিক্ষোভ-সমাবেশ করে আসছেন তারা। আধা-স্বায়ত্তশাসিত হংকংয়ের প্রধান নির্বাহী নির্বাচিত করে থাকে চীন। তবে ২০১৭ সালে ওই অঞ্চলে সরাসরি নির্বাচন দেওয়ার ব্যাপারে সম্মত হয় দেশটি। কিন্তু ওই নির্বাচনে প্রার্থী বাছাইয়ের ক্ষেত্রে বেইজিংই সর্বেসর্বা বলেও ঘোষণা দেয় চীন।

সমাবেশের এক আয়োজক ডেসি চ্যান বার্তা সংস্থা এএফপিকে বলেন, ‘গত বছরের বিক্ষোভ-সমাবেশের ফল হিসেবে দেখা হবে নতুন এ সমাবেশকে। এখনকার সমাবেশের চেয়ে আগের সমাবেশগুলোতে অংশগ্রহণকারীরা রাজনীতিতে কম যুক্ত ছিল। গণতন্ত্রকামী মানুষ জেগে ওঠেছে। সমাবেশে মানুষ দলে দলে যোগ দিচ্ছেন। এটা থামানো যাবে না।’

যদিও গত বছর পুলিশের কারণে তাদের বিক্ষোভ সফল হয়নি। সে সময় অনেক গণতন্ত্রকামী নেতাকে গ্রেফতার করাও হয়েছিল। নতুন এই সমাবেশে ৫০ হাজার লোক উপস্থিত হবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

হংকেংয়ের প্রধান নীতিনির্ধারক কমিটি নির্বাহী কাউন্সিলের প্রধান ল্যাম উন-নোং স্থানীয় এক সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, এই সমাবেশকে তারা হুমকি হিসেবে মনে করছেন না। যেকোনো পরিস্থিতি মোকাবিলায় নিরাপত্তা বাহিনী প্রস্তুত রয়েছে বলে জানান তিনি। গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, প্রায় দুই হাজার পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে হংকংজুড়ে।

তথ্যসূত্র : বিবিসি।

You Might Also Like