ফরিদপুর সদর হাসপাতাল থেকে নবজাতক চুরি

ফরিদপুর সদর হাসপাতালের গাইনী ওয়ার্ড থেকে একদিন বয়সী এক নবজাতক চুরির ঘটনা ঘটেছে।

বুধবার সকাল আটটার দিকে এক নারী নবজতককে চুরি করে নিয়ে যায় বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এই ঘটনায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ চার সদস্যের একটি তদন্ত টিম গঠন করেছে।

পারিবারিক ও হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার ১০টার দিকে সন্তান সম্ভাবনা স্ত্রী পারভীনকে ফরিদপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করে হোটেল শ্রমিক নজরুল। বেলা ১টার দিকে সিজারিয়ান অপারেশনের মাধ্যমে একটি ছেলে সন্তান জন্ম দেয়। সন্তান জন্ম হওয়ার পর থেকেই এক অপরিচিত মহিলা বিভিন্ন কাজে তাদের সহায়তা করছিল, সেময় পরিবারটি ধারণা করছিল ঐ নারী হাসপাতালের কোনো কর্মী হবেন। সকালে নজরুল হাসপতালের বাইরে এবং শাশুড়ি ঔষধ আনতে দোকানে গেলে অপরিচিত ঐ মহিলা বাচ্চা নিয়ে পালিয়ে যায়।

তাদের বাড়ি রাজবাড়ী জেলার বালিয়াকান্দি উপজেলায় হলেও কর্মসূত্রে পরিবারটি ফরিদপুরের সদরপুর উপজেলার কৃষ্ণপুরে বসবাস করছে।

শিশুর বাবা হোটেল শ্রমিক নজরুল জানায়, শিশুর জন্মের পর থেকেই ঐ নারী বিভিন্ন কাজে আমাদের সহায়তা করছিল বলে ভেবেছিলাম তিনি হাসপাতালের কেউ হবেন।

অন্যদিকে হাসপাতালের সিনিয়ার স্টাফ নার্স খাদিজা আক্তার জানান, ঐ নারীর সাথে সখ্যতা দেখে আমরা মনে করেছি তিনি ঐ পরিবারের কেউ হবেন। এই ধরনের বাচ্চা চুরির ঘটনায় এই হাসপাতালে প্রথম।

হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা ডা. গণেশ কুমার আগারওয়াল শিশু চুরির ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এই ঘটনা তদন্তে চার সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটি কাজ শুরু করেছে।

তিনি আরো বলেন, বিষয়টি কোতয়ালী থানা পুলিশকে অবহিত করা হয়েছে।

You Might Also Like