ফখরুলের বিরুদ্ধে ৩ মামলায় হাইকোর্টের জামিন আপিল বিভাগে বহাল

রাজধানীর পল্টন ও মতিঝিল থানায় নাশকতার তিন মামলায় বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে দেয়া হাইকোর্টের জামিন বহাল রেখেছে আপিল বিভাগ।

আজ (রোববার) সকালে প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বে চার সদস্যের বেঞ্চ এ আদেশ দেন। বেঞ্চের অপর সদস্যরা হলেন বিচারপতি নাজমুন আরা সুলতানা, বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন ও বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী। আদেশে বলা হয়, এই তিন মামলায় পুলিশি প্রতিবেদন না দেয়া পর্যন্ত জামিনে থাকবেন মির্জা ফখরুল।

আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। মির্জা ফখরুল ইসলামের পক্ষে ছিলেন তার আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন।

মামলার বিবরণে জানা যায়, নাশকতার অভিযোগে গত বছর ২৯ ডিসেম্বর ও গত ৬ জানুয়ারি পল্টন থানায় দুটি এবং গত ৪ জানুয়ারি মতিঝিল থানায় একটি মামলা করে পুলিশ। গত ১৮ জুন এ তিন মামলায় মির্জা ফখরুলকে জামিন দেন হাইকোর্ট। রাষ্ট্রপক্ষ ২২ জুন হাইকোর্টের জামিন স্থগিত চেয়ে চেম্বার আদালতে আবেদন করে। রোববার এ আবেদনের নিষ্পত্তি করে আপিল বিভাগ জামিন আদেশ বহাল রাখেন।

এর আগে রাজধানীর পল্টন থানায় দায়ের হওয়া আরও তিন মামলায় জামিন পেয়েছেন মির্জা ফখরুল। ওই তিন মামলায় রাষ্ট্রপক্ষ জামিন স্থগিতে আবেদন না করলে তার মুক্তি পেতে বাধা নেই বলে জানিয়েছেন আইনজীবীরা।

প্রসঙ্গত, বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের বিরুদ্ধে বর্তমান সরকারের আমলে হরতাল-অবরোধে নাশকতা ও গাড়িতে আগুন-ভাঙচুরের অপরাধে ৭৮টি মামলা রয়েছে। এর মধ্যে ২৫টি মামলায় অভিযোগপত্র দিয়েছে পুলিশ। বাকি মামলাগুলো এখনো তদন্তাধীন রয়েছে, খালাস পেয়েছেন একটি মানহানির মামলায়।

খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলামকে পাগল বলার অভিযোগে করা মানহানির মামলায় মির্জা ফখরুল ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিমের (সিএমএম) আদালত থেকে বেকসুর খালাস পেয়েছেন। এটিই ছিল তাঁর বিরুদ্ধে আওয়ামী লীগ সরকারের আমলে করা প্রথম মামলা।

গত ৬ জানুয়ারি জাতীয় প্রেস ক্লাব থেকে মির্জা ফখরুলকে গ্রেফতার করে পুলিশ। বর্তমানে তিনি আদালতের নির্দেশে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালের প্রিজন সেলে কারাবন্দি অবস্থায় চিকিৎসাধীন।

You Might Also Like