প্রেম করে বিয়ে করায় নবদম্পতিকে মারধর

বাবা-মা বিয়ে মেনে নিলেও অন্যরা তাতে সায় দেননি। এতেই বেঁধেছে বিপত্তি। রড ও লাঠি দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর আহত করা হয়েছে নবদম্পতি মনির হোসেন ও জান্নাত বেগমকে।

গুরুতর আহত অবস্থায় রায়পুর সরকারী হাসপাতালে তাদের ভর্তি করা হয়েছে।

উপজেলার দক্ষিণ চরবংশী ইউনিয়নের চরলক্ষী গ্রামে রবিবার সন্ধ্যায় এ ঘটনা ঘটে।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, দক্ষিণ চরবংশী ইউনিয়নের চরলক্ষী গ্রামের আব্দুল আজিজের ছেলে মনির হোসেন শরীয়তপুর জেলার মৃত শাহাব আলী সরকারের মেয়ে জান্নাতকে গোপনে বিয়ে করে। বিয়ের বিষয়টি পরিবারের কাউকে না জানিয়ে মনির শনিবার সকালে জান্নাতকে নিয়ে নিজ বাড়িতে আসে। পরে সে স্থানীয়দের দিয়ে তার বাবা ও মাকে ঘটনাটি বুঝিয়ে মীমাংসা করে। বাবা ও মা ঘটনাটি মেনে নিলেও ছোট বোন পিংকি আক্তার মেনে নিতে পারেনি। পিংকি এর জের ধরে রবিবার সন্ধ্যায় তার চাচাত ভাই সবুজ, সুজন, সুমন ও আলমগীরসহ ১০-১২ জনকে বাড়িতে ডেকে এনে ভাই মনির ও তার স্ত্রী জান্নাতকে লাঠি ও রড দিয়ে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে গুরুতর আহত করে বাড়ির পাশের রাস্তায় ফেলে রাখে। পরে স্থানীয় লোকজন উদ্ধার করে নবদম্পতিকে রায়পুর সরকারী হাসপাতালে ভর্তি করে।

এ ঘটনায় রাত ১০টায় রায়পুর থানায় মামলা করেন মনিরের বাবা আব্দুল আজিজ লোয়াজী। মামলায় ভাতিজা সবুজসহ চারজনের নাম উল্লেখসহ আরও ৮-১০ জনকে আসামি করেন তিনি।

এ ঘটনায় অভিযুক্ত পিংকি ও তার চাচাত ভাইদের কারও বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

রায়পুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল্লাহ আল মামুন ভূইয়া বলেন, ‘মারধরের খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। অভিযুক্তরা পালিয়ে যাওয়ায় কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি।’

You Might Also Like