প্রবল বন্যা ঝুঁকিতে রয়েছে বাংলাদেশ-ভারত-চীন

জলবায়ু পরিবর্তন এবং অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি নিম্নসারিতে থাকার কারণে প্রবল বন্যা ঝুঁকিতে রয়েছে বাংলাদেশ, ভারত ও চীন।
যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক ওয়ার্ল্ড রিসোর্সেস ইনস্টিটিউট (ডব্লিউআরআই) ও নেদারল্যান্ডের বিশেষজ্ঞদের এক গবেষণা শেষে এ তথ্য জানানো হয়েছে।
প্রকাশিত গবেষণা প্রতিবেদনকে উদ্ধৃত করে শুক্রবার (৬ মার্চ) পাকিস্তানের একটি প্রভাবশালী সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়, বছরে সাধারণত সারা বিশ্বে দুই কোটির মতো মানুষ বন্যাকবলিত হয়। তবে জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে ২০৩০ সাল নাগাদ এই সংখ্যা বেড়ে সাড়ে পাঁচ কোটিতে গিয়ে দাঁড়াবে। এই সংখ্যার ৮০ শতাংশই বাংলাদেশ, ভারত, চীন, ভিয়েতনাম এবং পাকিস্তানের মানুষ। শুধুমাত্র ভারতেই ৫০ লাখ মানুষ প্রবল বন্যা ঝুঁকিতে আছে।
গবেষণা প্রতিবেদনে বলা হয়, উন্নত দেশগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি বন্যা ঝুঁকিতে আছে যুক্তরাষ্ট্রের জনগণ। ২০৩০ সাল নাগাদ দেশটির প্রায় দুই লাখ মানুষ গড়ে প্রতি বছর বন্যা ভোগান্তিতে পড়বে।
১৬০টি দেশ নিয়ে ঝুঁকির ভিত্তিতে প্রস্তুত প্রতিবেদনের তালিকায় ভারতকে সর্বাগ্রে, তারপর বাংলাদেশ, এবং তৃতীয় স্থানে চীনকে রাখা হয়। তালিকার ১৮ নম্বরে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।
গবেষণা প্রতিবেদনে আরও জানানো হয়, সারাবিশ্বে প্রতি বছর বন্যার কারণে আর্থিক ক্ষতির পরিমাণ ৯৬ বিলিয়ন ডলার। শুধুমাত্র ভারতেই এই ক্ষতি ১৪ বিলিয়ন ডলার। আর বাংলাদেশে এর পরিমাণ প্রায় সাড়ে পাঁচ বিলিয়ন (পাঁচশ ৫০ কোটি) ডলার।
বৈশ্বিক এই ক্ষতির পরিমাণ ২০৩০ সাল নাগাদ ৫২১ বিলিয়ন ডলারে গিয়ে দাঁড়ানোর আশঙ্কা আছে বলেও ওই গবেষণা প্রতিবেদনে দাবি করা হয়।

You Might Also Like