প্রধানমন্ত্রী নির্বাচনকালীন সরকার নিয়ে বিভ্রান্ত করছেন : মওদুদ

প্রধানমন্ত্রী নির্বাচনকালীন সরকার ব্যবস্থা নিয়ে জনগণকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করছন বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপি নেতা ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী তার ভাষণে বলেছেন, নির্বাচনের সময় একটি সরকার গঠন করা হবে। কিন্তু নির্বাচনকালে সরকার গঠনের কোনো ব্যবস্থা এ সংবিধানে নাই।

‘এই কথাটা বলে তিনি জনগণকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করেছেন। মূল কথা হলো যে, এই দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন হবে, সেটাই তিনি বলার চেষ্টা করেছেন’, বলেন ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ।

শনিবার জাতীয় প্রেসক্লাবে ডেমোক্রেটিক মুভমেন্ট নামের একটি সংগঠন আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে এ আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

মওদুদ আহমদ বলেন, সারা জাতি প্রত্যাশা করে ছিল যে, আগামী নির্বাচন কীভাবে সুষ্ঠু, অবাধ ও নিরপেক্ষ করা যায়, সে ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী কিছু একটা বলবেন। কিন্তু সে ব্যাপারে তিনি কিছুই বলেননি।

তিনি আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রী যদি সবকিছুর ঊর্ধ্বে উঠে সবার দুঃখ-কষ্টের কথা বলতেন তবে জনগণ বাহবা দিত। ভাষণে যদি নির্বাচনকালীন নির্দলীয় সরকারের রূপরেখা দিতেন, আমরাও বাহবা দিতাম। কাজেই তার জাতির উদ্দেশে দেওয়া ভাষণ জনগণের গ্রহণযোগ্যতা অর্জন করেনি।

প্রধানমন্ত্রীর ভাষণ একতরফা ও আত্মতুষ্টির বহিঃপ্রকাশ, এ মন্তব্য করে মওদুদ আহমদ বলেন, তার ভাষণে গণতন্ত্রের সংকটের ও দেশের সত্যিকারের সংকটের চিত্র ফুটে ওঠেনি। তার ভাষণে কেবল তার সরকারের উন্নয়নের ফিরিস্তি তুলে ধরা হয়েছে।

উন্নয়ন মেলাকে দুর্নীতির মেলা অভিহিত করে বিএনপির স্থায়ী কমিটির এই সদস্য বলেন, সরকার সব বড় বড় প্রকল্প হাতে নিচ্ছে। আর বড় বড় প্রকল্প মানে বেশি বেশি দুর্নীতি। বড় বড় প্রকল্প মানে বেশি বেশি ঘুষ। এসব প্রকল্পের মাধ্যমে জনগণের হাজার হাজার কোটি টাকা লুটপাট করা হচ্ছে।

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি ও এলডিপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব শাহাদাত হোসেন সেলিমের সভাপতিত্বে আলোচনায় অংশ নেন বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব মুজিবুর রহমান সারোয়ার, সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু, বাংলাদেশ ন্যাপের মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া, বিএনপি নির্বাহী সদস্য আবু নাসের মোহাম্মদ রহমাতুল্লাহ, খালেদা ইয়াসমিন, এনডিপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মো. মঞ্জুর হোসেন ঈসা, এলডিপির যুগ্ম মহাসচিব তমিজউদ্দিন টিটু, ড. কাজী মনিরুজ্জামান মনির, শাহজাহান মিয়া সম্রাট প্রমুখ।

You Might Also Like