প্রতিবন্ধী শিশু ধর্ষণ, মামলা তুলে নিতে হুমকি

জামালপুরের সরিষাবাড়ী উপজেলায় বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী এক শিশু (১৩) ধর্ষণের শিকার হয়েছে। ঘটনার দুই সপ্তাহ পেরিয়ে গেলেও ধর্ষককে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ। উল্টো মামলা তুলে নিতে বাদীকে হুমকি দেওয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

উপজেলার ডোয়াইল ইউনিয়নের বালিয়া গ্রামে গত ৩০ আগস্ট ধর্ষণের ঘটনাটি ঘটে। এ ঘটনায় ৯ সেপ্টেম্বর ধর্ষিতার বাবা বাদী হয়ে একই গ্রামের সোহরাব হোসেনের বখাটে ছেলে ধর্ষক মাসুদ রানার (২০) বিরুদ্ধে সরিষাবাড়ী থানায় মামলা দায়ের করেন।

মামলা ও পারিবারিক সূত্র জানায়, বালিয়া গ্রামের হতদরিদ্র করাতকল শ্রমিকের একমাত্র মেয়ে (১৩) জন্ম থেকেই মানসিকভাবে প্রতিবন্ধী। গত ৩০ আগস্ট রাত ১০টার দিকে একই গ্রামের সোহরাব হোসেনের বখাটে ছেলে মাসুদ রানা ওই শ্রমিকের ঘরে ঢুকে তার প্রতিবন্ধী মেয়েকে তুলে নিয়ে যায়। তারপর মাসুদ রানা তার ঘরে নিয়ে ওই শিশুকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে।

ধর্ষণের শিকার শিশুটির বাবা জানান, তিনিও দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী (এক চোখ অন্ধ)। ঘটনার দিন কাজ শেষে বাড়ি ফেরার সময় রাত হয়ে যায়। এ সময় তার স্ত্রী ও ছোট ছেলে তাকে রাস্তায় এগিয়ে আনতে গেলে বাড়ি ফাঁকা পেয়ে মাসুদ ঘরে ঢুকে প্রতিবন্ধী মেয়েকে তুলে নিয়ে ধর্ষণ করে। এরপর ঘটনাটি গোপন রাখতে ধর্ষকের পরিবার তাকে চাপ প্রয়োগ করতে থাকে। একপর্যায়ে এলাকায় বিচার না পেয়ে ৯ সেপ্টেম্বর সরিষাবাড়ী থানায় মামলা দায়ের করা হয়।

তিনি অভিযোগ করেন, ঘটনার দুই সপ্তাহ পেরিয়ে গেলেও ধর্ষক প্রকাশ্যে এলাকায় ঘুরাফেরা করছে, পুলিশ এখনো তাকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি। উল্টো ধর্ষকের পরিবার তাকে মামলা তুলে নিতে বিভিন্ন ভয়-ভীতি দেখাচ্ছে। বাধ্য হয়ে তার পরিবার বাড়ি ছেড়ে অন্যত্র আশ্রয় নিয়েছেন বলেও তিনি জানান।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সরিষাবাড়ী থানার এসআই গোলাম মোস্তফা জানান, ধর্ষককে গ্রেপ্তারে পুলিশ চেষ্টা চালাচ্ছে। তার পরিবার বাড়িঘর ছেড়ে পালিয়ে গেছে। বাদীকে হুমকির বিষয়টি জানা নেই।

You Might Also Like