প্রতারণার অভিযোগে রাবির ৫ কর্মচারী বরখাস্ত

বিশ্ববিদ্যালয়ে চাকরি প্রার্থীদের কাছ থেকে প্রতারণা করে টাকা আত্মসাতের অভিযোগে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) ৫ কর্মচারীকে চাকরি থেকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

রোববার রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের ৪৫৪তম সিন্ডিকেটে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

বরখাস্তকৃত কর্মচারীরা হলেন- পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক দফতরের উচ্চমান সহকারী শংকর চন্দ্র সাহা, কম্পিউটার সায়েন্স বিভাগের পিয়ন সেকেন্দার আলী, গণিত বিভাগের পিয়ন হাবিবুর রহমান, পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের পিয়ন আব্বাস আলী ও জিয়াউর রহমান হলের সাধারণ কর্মচারী খালিদ হোসেন সরদার।

সিন্ডিকেট সূত্র জানায়, বিভিন্ন সময় চাকরি দেওয়ার নাম করে একাধিক ব্যক্তির কাছ থেকে মোটা অংকের টাকা নেয় এই পাঁচ কর্মচারী। পরে প্রতারণার শিকার চাকরিপ্রার্থী ও তাদের স্বজনরা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের নিকট কর্মচারীদের বিরুদ্ধে টাকা আত্মসাতের ব্যাপারে লিখিত অভিযোগ দেন। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে। তদন্তে তাদের বিরুদ্ধে টাকা আত্মসাতের বিষয়টি প্রমাণিত হয়। সর্বশেষ রোববার কমিটির তদন্ত প্রতিবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বিশ্ববিদ্যালয় সিন্ডিকেট এই সিদ্ধান্ত নেয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো-ভিসি অধ্যাপক চৌধুরী সারওয়ার জাহান শীর্ষ নিউজকে বলেন, তাদের বিরুদ্ধে গঠিত তদন্ত কমিটির প্রতিবেদনে অভিযোগ প্রমাণিত হয়েছে। তাই কমিটির সুপারিশের পরিপ্রেক্ষিতে সিন্ডিকেট তাদেরকে বরখাস্ত করে।

তিনি আরো বলেন, তাদেরকে আত্মপক্ষ সমর্থনের জন্য কয়েক দিন সময় দেওয়া হবে। যদি এতে তারা যথাযথ জবাব দিতে ব্যর্থ হয় তাহলে আগামী সিন্ডিকেটে তাদেরকে স্থায়ীভাবে চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হবে।

You Might Also Like