পুলিশ বেঁধে মোটরসাইকেল ছিনতাই : গ্রেফতার ২

শেরপুরে আঞ্চলিক সড়কে এক পুলিশ কর্মকর্তা ও এক যুবলীগ নেতাসহ ৩ জনকে বেঁধে মারপিট করে মোটরসাইকেল ছিনিয়ে নিয়েছে সশস্ত্র ডাকাতরা। এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে আজ সোমবার দুইজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

রোববার রাত ৮টা আমিনপুর আঁশগ্রামের তেঁতুলতলা পুকুরপাড় এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় সাবইন্সপেক্টর রাজু কামাল বাদি হয়ে রোববার রাতেই থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।

গ্রেফতারকৃতরা হলো- উপজেলার ভবানীপুর ইউনিয়নের ভবানীপুর কালীবাড়ী গ্রামের ফজলার রহমানের ছেলে আব্দুর রউফ (৩২) ও সিরাজগঞ্জের রায়গঞ্জ উপজেলার ধামাইনগর ইউনিয়নের খিয়াইল গ্রামের নুরুল ইসলামের ছেলে সোহেল রানা (২৭)।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, শেরপুর থানার এসআই রাজু কামাল একজন কনস্টেবল ও বাবু নামের একজনকে সঙ্গে নিয়ে মোটরসাইকেল যোগে রোববার রাতে ভবানীপুর এলাকায় আসামি ধরতে যায়। কিন্তু আসামি না পেয়ে থানায় ফেরার পথে ঢাকা-বগুড়া মহাসড়কের ঘোগা বটতলা-ভবানীপুর আঞ্চলিক সড়কের আমিনপুর আঁশগ্রামের তেঁতুলতলা পুকুরপাড় এলাকায় পৌঁছলে একদল সশস্ত্র ডাকাত তাদের গতিরোধ করে। একপর্যায়ে তাদের বেঁধে রেখে মারপিট করে তাদের ব্যবহৃত মোটরসাইকেল ছিনিয়ে নেয়। খবর পেয়ে শেরপুর থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) মিজানুর রহমানের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পুলিশ কর্মকর্তা রাজু কামাল, উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ইসমাইল হোসেন বাবু (৩০) ও এক পুলিশ কনস্টেবলকে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় উদ্ধার করে। পরে স্থানীয়রা তাদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। এ ঘটনায় সাবইন্সপেক্টর রাজু কামাল বাদি হয়ে রোববার রাতেই থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। মামলায় ৫ জনের নাম উল্লেখ করে আরও ৩-৪জনকে অজ্ঞাত আসামি করা হয়েছে। ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে আজ দুপুরে দু’জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

শেরপুর থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) মিজানুর রহমান বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, এ ঘটনায় জড়িতদের ধরতে গ্রেফতার অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

You Might Also Like