পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধ’: নড়াইলে যুবক নিহত, সাতক্ষীরায় জনযুদ্ধ নেতা গুলিবিদ্ধ

এখন সময় ডেস্কঃ নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলায় পুলিশের সঙ্গে কথিত ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মো. রাকিব (৩০) নামের এক যুবক নিহত হয়েছেন।

শুক্রবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে এ ঘটনা ঘটে। নিহত রাকিবের বাড়ি লোহাগড়ার চাঁচই গ্রামে। তাঁর বাবার নাম মোকলেস হোসেন।

লোহাগড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বিপ্লব কুমার সাহা জানান, গতকাল দিবাগত রাতে লোহাগড়া উপজেলার দিঘলিয়া দক্ষিণপাড়ায় একদল লোক ডাকাতির প্রস্তুতি নিচ্ছিল- এমন খবর পেয়ে টহল পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে ডাকাতদল পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোঁড়ে। এ সময় পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। গোলাগুলির একপর্যায়ে ঘটনাস্থলে রাকিবকে পড়ে থাকতে দেখা যায়। পরে আহত অবস্থায় তাঁকে লোহাগড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন। বন্দুকযুদ্ধের সময় উপপরিদর্শক (এসআই) মিজানসহ তিন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন বলে তিনি জানান।

পুলিশের দাবি, রাকিবের নামে লোহাগড়া ও নড়াইল থানাসহ বিভিন্ন থানায় অন্তত ১২টি মামলা রয়েছে।

এদিকে, সাতক্ষীরার তালা উপজেলায় পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ সঞ্জিত অধিকারী (৩৫) নামের এক যুবক গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। গুলিবিদ্ধ সঞ্জিত অধিকারী তালার জালালপুর ইউনিয়নের শ্রীমন্তকাঠি গ্রামের কার্তিক অধিকারীর ছেলে।

শুক্রবার দিবাগত রাত ২টার দিকে উপজেলার খেসরা ইউনিয়নের তেঘরিয়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

জেলা পুলিশের তথ্য কর্মকর্তা উপপরিদর্শক (এসআই) কামাল হোসেন জানান, রাতে এসআই রইসউদ্দিনের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল খেসরার তেঘরিয়ার দিকে যাচ্ছিল। এ সময় একদল সন্ত্রাসী তাদের লক্ষ্য করে ককটেল নিক্ষেপ করে। এতে পুলিশের এসআই মো. বাদশা আহত হন। পুলিশ এ সময় পাল্টা গুলি করলে এক ব্যক্তিকে মাটিতে পড়ে যেতে দেখা যায়। পরে পুলিশ ওই ব্যক্তিকে পূর্ব বাংলার কমিউনিস্ট পার্টির ( জনযুদ্ধ) নেতা সঞ্জিত অধিকারী হিসেবে শনাক্ত করে।

এসআই কামাল আরো জানান, বন্দুকযুদ্ধের পর সঞ্জিতের অন্য সহযোগীরা পালিয়ে যায়। আহত সঞ্জিতকে পুলিশ প্রহরায় সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে ।

পুলিশের দাবি, সঞ্জিত অধিকারী নিষিদ্ধঘোষিত পূর্ব বাংলার কমিউনিস্ট পার্টির (জনযুদ্ধ) পলাতক নেতা। গতকাল বৃহস্পতিবার পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে নিহত জনযুদ্ধের আঞ্চলিক নেতা মোজাফফর সানার ঘনিষ্ঠ সহযোগী সঞ্জিত। তার বিরুদ্ধে তালা থানায় কয়েকটি মামলা রয়েছে।

You Might Also Like