পুরুষের অস্তিত্ব থাকবে না!

মাতৃগর্ভে ছেলে নাকি মেয়ে শিশু জন্ম নেবে তা নির্ভর করে পিতা-মাতার ক্রোমোজোমের উপর। ক্রোমোজোমকে বলা হয় বংশগতির ভৌত ভিত্তি। এ ক্ষেত্রে স্ত্রী সূচক ক্রোমোজোমের নাম হল এক্স এবং পুরুষ সূচক ওয়াই।

সম্প্রতি এক গবেষণার ফলাফলে দেখা গেছে, পুরুষের (পিতার) রক্তকোষ থেকে ওয়াই ক্রোমোজোম ক্রমে হারিয়ে যেতে পারে। এর পেছনে অন্যতম প্রধান কারণ ধূমপান। শুধু ওয়াই ক্রোমোজোমই নয়, সাধারণভাবে পুরো ডি অক্সিরাইবো নিউক্লিউ এসিড (ডিএনএ) এর ক্ষতি করছে ধূমপান।

সুইডেনের গবেষকেরা সাম্প্রতিক এক গবেষণায় এ তথ্য পেয়েছেন। ছয় হাজারের বেশি পুরুষের রক্তের নমুনা পরীক্ষা করে দেখেছেন তারা। সাম্প্রতিক গবেষণাসংক্রান্ত এ নিবন্ধ প্রকাশিত হয়েছে সায়েন্স সাময়িকীতে।

ওই গবেষণার ফলে বলা হয়েছে, পুরুষ যত বেশি ধূমপান করেন ততই তাদের রক্তকোষ থেকে ওয়াই ক্রোমোজোম হারিয়ে যেতে শুরু করে। কিন্তু যারা ধূমপান ছেড়ে দেন, তাদের ক্ষেত্রে আবারও ওয়াই ক্রোমোজোম ফিরে আসতে থাকে। এ ছাড়া যেসব পুরুষের রক্তকোষের ওয়াই ক্রোমোজোম হারিয়ে যায়, তাদের ক্যানসারে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকিও বেড়ে যায়।

সুইডেনের গবেষকেরা বলছেন, অধূমপায়ী পুরুষের চেয়ে ধূমপায়ী পুরুষের ক্রোমোজোম তিনগুণ দ্রুত হারিয়ে যায়। ওয়াই ক্রোমোজোম হারানোর সঙ্গে মানুষের আয়ু কমার সম্পর্ক রয়েছে বলেও প্রমাণ পেয়েছেন তারা। গবেষকেরা দাবি করছেন, তাদের এ গবেষণা ধূমপানে নারীর তুলনায় পুরুষের মৃত্যুহার বেশি হওয়ার কারণ জানতে সাহায্য করবে।

সুইডেনের উপসালা বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক লার্স ফর্সবার্গের নেতৃত্বে এ গবেষণা পরিচালিত হয়েছে। তিনি বলেছেন, আমাদের এ আবিষ্কার ধূমপান ছেড়ে দেওয়ার ক্ষেত্রে উৎসাহ জোগাবে।

প্রসঙ্গত, বংশগতি বিদ্যায় ওয়াই ক্রোমোজোমের উপস্থিতির কারণেই একজন পুরুষ বলে নির্ধারিত হন। ক্রোমোজোমের কাজ হলো বাবা-মার কাছ থেকে জিন সন্তান সন্ততিতে বহন করে নিয়ে যাওয়া। মানুষের চোখের রং, চুলের প্রকৃতি, চামড়ার গঠন ইত্যাদি বৈশিষ্ট্য ক্রোমোজোম কর্তৃক বাহিত হয়ে বংশগতির ধারা অক্ষুণ্ণ রাখে।

নির্দিষ্ট প্রজাতির জীবের কোষে ক্রোমোজোম সংখ্যা নির্দিষ্ট। প্রতিটি ক্রোমোজোম বহুসংখ্যক জিন দ্বারা গঠিত। নারীর দুটি ক্রোমোজোমই এক্স আর পুরুষের ক্রোমোজোম এক্স ও ওয়াই।-সকালের খবর

You Might Also Like