পাবনায় পুলিশ হত্যা মামলার আসামি ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত

পাবনার ঈশ্বরদীতে পুলিশের সঙ্গে কথিত ‘বন্দুকযুদ্ধে’ রুবেল হোসেন (২৫) নামের এক যুবক নিহত হয়েছেন। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে একটি বিদেশি রিভলবার ও ২ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়েছে। বুধবার রাত ৩টার দিকে এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। নিহত রুবেল উপজেলার দিয়ার বাঘইল গ্রামের ইদ্রিস আলীর ছেলে।

পুলিশের দাবি, নিহত রুবেল পাকশী পুলিশ ফাঁড়ির এটিএসআই সুজাউল ইসলাম সুজা হত্যা মামলার প্রধান আসামি।

ঈশ্বরদী থানার অফিসার ইনচার্জ বিমান কুমার দাশ জানান, পাকশী পুলিশ ফাঁড়ির এটিএসআই সুজাউল ইসলাম সুজা হত্যা মামলার প্রধান পলাতক আসামি রুবেল হোসেনকে মঙ্গলবার দিবাগত রাত ১১টার দিকে ঈশ্বরদী উপজেলার দিয়ার বাঘইল রেললাইনের পাশ থেকে গ্রেপ্তার করা হয়।

পরে তার দেয়া তথ্য অনুযায়ী আরেক আসামি ইবরা হোসেনকে গ্রেপ্তারের জন্য রুবেলকে নিয়ে পদ্মার চরে অভিযানে যায় পুলিশ।

সেখানে পৌঁছার পর পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোঁড়ে অপর আসামিরা। এ সময় আত্মরক্ষার্থে পুলিশও পাল্টা গুলি ছোঁড়ে। এসময় রুবেল পালাতে গিয়ে গুলিবিদ্ধ হয়। কিছু সময় বন্দুকযুদ্ধ চলার পর হামলাকারীরা পিছু হটলে ঘটনাস্থল থেকে একটি বিদেশি রিভলবার ও ২ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়। পরে গুলিবিদ্ধ রুবেলকে ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে। এ ঘটনায় পুলিশের এক উপ-পরিদর্শক তৌফিক হাসানসহ ৩ কনস্টেবল আহত হয়েছে। তাদের হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা সেবা দেয়া হয়।

উল্লেখ্য, গত বছরের গত ৪ অক্টোবর রাতে ঈশ্বরদীর পাকশী পুলিশ ফাঁড়ির এটিএসআই সুজাউল ইসলাম (৩৫) কে হাত-পা, মুখ বেঁধে শ্বাসরোধে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। পরদিন ৫ অক্টোবর সকালে পাকশী পেপার মিলস কলোনী সংলগ্ন হলুদের ক্ষেত থেকে তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

এ ঘটনায় পাকশী পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই রেজাউল করিম বাদি হয়ে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। এই মামলায় এখন পর্যন্ত ৫ জনকে গ্রেপ্তার করে জেলহাজতে পাঠিয়েছে পুলিশ।

You Might Also Like