পাবনায় আইসোলেশন থাকা রোগীর পলায়ন

পাবনা জেনারেল হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডে ভর্তি থাকা এক রোগী পালিয়ে গেছে।

বৃহস্পতিবার (৯ এপ্রিল) ঘটনাটি গণমাধ্যমকর্মীদের মাঝে জানাজানি হয়। এ ঘটনায় থানায় সাধারণ ডায়েরি করেছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। এর আগে মঙ্গলবার (৭ এপ্রিল) কোনো এক সময় তিনি পালিয়ে যান।

পালিয়ে যাওয়া ওই যুবকের নাম মোস্তাক আল মামুন (২৫)। তার বাড়ি দিনাজপুরের হাকিমপুর উপজেলায়। তিনি জ্বর-সর্দি-কাশি ও মাথা ব্যাথা নিয়ে গত রোববার (৫ এপ্রিল) পাবনার বেড়ায় কাশিনাথপুর দিঘলকান্দি গ্রামে শ্বশুর বাড়িতে বেড়াতে আসেন।

শ্বশুরবাড়ির স্বজনেরা তার এসব লক্ষণ দেখে স্থানীয় পুলিশের মাধ্যমে পাবনা জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যান। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ রোগীর প্রাথমিক লক্ষণ করোনা সন্দেহ করে হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডে ভর্তি করিয়ে চিকিৎসা শুরু করে।

পাবনা জেলারেল হাসপাতালের সহকারী পরিচালক ডা. আবুল হোসেন জানান, ওই রোগীকে চিকিৎসাসেবা নেওয়ার দুদিন পর হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ড থেকে পালিয়ে যায়। ওয়ার্ডের ভেন্টিলেটর ভাঙ্গা দেখে প্রাথমিক ধারণা করা হচ্ছে তিনি ওইদিক দিয়ে পালিয়েছেন।

আইসোলেশন ওয়ার্ডে রোগী ভর্তির পর তাকে চেকআপ ও চিকিৎসাসেবা দেওয়া হয়। বাকি সময় আইসোলেশন ওয়ার্ডটি তালা মেরে রাখা হয়। ভেতরে কোনো নিরাপত্তাকর্মী বা গার্ড থাকে না বলে জানান তিনি।

এদিকে করোনা সন্দেহে ওই রোগীর পালিয়ে যাওয়ার ঘটনায় বুধবার (৮ এপ্রিল) পাবনা সদর থানায় সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে। ভর্তি থাকা অবস্থায় তার নমুনা সংগ্রহ করে রাজশাহীতে পাঠানো হয়েছে। তবে তার ফলাফল এখনো পাওয়া যায়নি।

পাবনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নাসিম আহম্মেদ বলেন, ‘এই ঘটনায় পাবনা জেনারেল হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ একটি সাধারণ ডায়েরি করেছে। পলায়নকৃত রোগীর তথ্য ও ঠিকানা অনুযায়ী সব স্থানে খোঁজ খবর নেওয়া হচ্ছে। তাকে উদ্ধারের চেষ্টা চলছে।’

পাবনার সিভিল সার্জন ডা. মেহেদী ইকবাল জানান, হাসপাতালের সহকারী পরিচালক আইসোলেশন থেকে রোগী পালানোর বিষয়টি জানিয়েছেন। এ ঘটনায় কারো গাফিলতি ছিল কি না বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

You Might Also Like