পাঞ্জাবে বাসে শ্লীলতাহানির চেষ্টা, কিশোরীর মৃত্যু, সংসদে উদ্বেগ

ভারতের পাঞ্জাবের মোগায় বাসের মধ্যে শ্লীলতাহানিতে বাধা দেয়ায় ১৪ বছর বয়সী এক কিশোরীকে ছুঁড়ে ফেলে দিলে তার মৃত্যু হয়েছে। মৃত ওই কিশোরীর মাকে আশংকাজনক অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বুধবার রাতের এ ঘটনা আজ (বৃহস্পতিবার) প্রকাশ্যে আসতেই ব্যাপক চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে।

আজ(বৃহস্পতিবার) সংসদে প্রশ্নোত্তর পর্ব বন্ধ রেখে এ নিয়ে আলোচনার দাবি জানান, লুধিয়ানার কংগ্রেস এমপি রভনীত সিং বিট্টু। আম আদমি পার্টির এমপি ভগবন্ত সিং মান এ বিষয়টি লোকসভায় উত্থাপন করে উদ্বেগ প্রকাশ করেন। আম আদমি পার্টি এবং কংগ্রেসের পক্ষ থেকে এ ঘটনার তদন্ত এবং অপরাধীদের কঠোর শাস্তির দাবি জানানো হয়েছে।

পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী প্রকাশ সিং বাদল আজ এ ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করে জানান, ‘এ নিয়ে দু’জন অভিযুক্তকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অন্য দু’জনকেও গ্রেফতার করা হবে। আইন তার নিজস্ব পথে চলবে। প্রকাশ সিং বাদল এই ঘটনা নিয়ে রাজনীতি না করার আহ্বান জানিয়েছেন।’

বুধবার রাতে পাঞ্জাবের মোগা শহরের কাছে মোগা ভাটিন্ডা সড়ক দিয়ে একটি বাসে করে যাচ্ছিলেন ৩৫ বছর বয়সী এক নারী তার ১৪ বছর বয়সী মেয়ে এবং এক ১০ বছর বয়সী ছেলে। বাসের মধ্য কতিপয় যুবক তাদের উদ্দেশ্যে কটূক্তি করলে কন্ডাক্টর তাকে বাধা দেয়নি। অধিকন্তু ওই কন্ডাক্টরও কটূক্তিতে যোগ দেয় বলে অভিযোগ। আক্রান্তরা বাস চালককে বাস থামাতে বললেও চালক তাতে কান না দিয়ে আরো দ্রুত গতিতে বাস চালাতে শুরু করে।

কটূক্তি করা ওই যুবকরা ১৪ বছর বয়সী কিশোরীর শ্লীলতাহানি করার চেষ্টা করলে তার মা বাধা দেয়। এরপরেই মা ও মেয়েকে চলন্ত বাস থেকে ছুঁড়ে ফেলে দেয়া হয়। স্থানীয় বাসিন্দারা তাদের হাসপাতালে ভর্তি করেন। যদিও হাসপাতালে পৌঁছানোর আগেই পথেই মারা যায় ওই কিশোরী।

যে বাসে এই নৃশংস ঘটনা ঘটেছে, সেই বাসটি পাঞ্জাবের উপ-মুখ্যমন্ত্রী সুখবীর সিং বাদলের অরবিট সংস্থার। পাঞ্জাব কংগ্রেসের মুখপাত্র সুখপাল খেইরা সুখবীর সিং বাদলের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করার দাবি জানিয়েছেন।

You Might Also Like