পাকিস্তানে ধর্ষণে অভিযুক্ত একজনের আত্মসমর্পণ

পাকিস্তানে একজন নারীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনায় সন্দেহভাজন অভিযুক্তদের ছবি প্রকাশের পর একজন আত্মসমর্পণ করেছেন। তবে, ওই ব্যক্তির দাবি- তিনি নির্দোষ। এজন্য ডিএনএ পরীক্ষা চান তিনি।

এদিকে গত বুধবার রাতে লাহোর-শিয়ালকোট মহাসড়কের পাশে একজন নারীকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। ওই ঘটনার বিচারের দাবিতে পাকিস্তানের বিভিন্ন শহরে বিক্ষোভ চলছে।

গত শনিবারই অভিযুক্ত দু’জনের ছবি প্রকাশ করে পুলিশ। তাদের ধরিয়ে দিলে ২৫ লাখ রুপি পুরস্কার ঘোষণা করা হয়। তাদের একজন ওয়াকারুল হাসান এবং অন্যজন আবিদ আলি। ওয়াকারুল হাসান পুলিশের কাছে আত্মসমর্পণ করলেও আবিদ আলি পালিয়ে বেড়াচ্ছেন।

ওয়াকারুল হাসানের দাবি- তিনি নির্দোষ। ঘরে তার ছয় সন্তান রয়েছে। তার মোবাইল ব্যবহার করেছে আব্বাস নামে একজন শ্যালক। এ ব্যাপারে আব্বাসের সংশ্লিষ্টতা থাকতে পারে।

তিনি আরো দাবি করেন, ডিএনএ পরীক্ষার মাধ্যমে যেন নিশ্চিত হওয়া যায়, তিনি দোষী কিনা। সেই সঙ্গে দোষীদের আটকের দাবি জানিয়েছেন তিনি।

পুলিশ জানিয়েছে, অতীতে কোনো অপরাধের সঙ্গে ওয়াকারুল হাসানের সংশ্লিষ্টতার অভিযোগ নেই। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

সূত্র : ডন নিউজ

You Might Also Like