পাকিস্তানি ‘লাল গোলাপের’ আঘাতে ভারতের তিন রাজ্যে রেড অ্যালার্ট

১২০ কিলোমিটার বেগে ভারতের চেন্নাইয়ে আছড়ে পড়ল ঘূর্ণিঝড় ‘ভরদা’। বঙ্গোপসাগর থেকে প্রবল শক্তি সঞ্চয় করে ঘূর্ণিঝড় ‘ভরদা’ ভারতের উত্তর তামিলনাড়ু ও দক্ষিণ অন্ধ্রপ্রদেশের ওপর দিয়ে বয়ে যায়। এর প্রভাবে তামিলনাড়ুতে দুজনের মৃত্যু হয়েছে।
ইতিমধ্যেই তামিলনাড়ু ও অন্ধ্রপ্রদেশে শুরু হয়েছে প্রবল বৃষ্টি। বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেওয়া হয়েছে চেন্নাইয়ে। বন্ধ ট্রেন ও বিমান চলাচল। শহরের বিস্তীর্ণ এলাকায় জলাবদ্ধতা। উপড়ে পড়েছে গাছ। তাই তামিলনাড়ু ও অন্ধ্রপ্রদেশে জারি করা হয়েছে হাই অ্যালার্ট।

জানা গেছে, উপকূলবর্তী এলাকা থেকে পাঁচ হাজার মানুষকে নিরাপদে উদ্ধার করে আনার জন্য শিবালিক ও কদমত নামে নৌবাহিনীর দুটি জাহাজকে পাঠানো হয়েছে। জাহাজে রয়েছে পানি, খাবার ও কম্বল। রয়েছে চিকিৎসক ও ডুবুরি দল।

ইতিমধ্যেই চূড়ান্ত সতর্কতা জারি করেছে প্রশাসন। সমুদ্রে যেতে নিষেধ করা হয়েছে মৎস্যজীবীদের। কিন্তু ঝড় ভারতে আছড়ে পড়লেও তার সঙ্গে জড়িয়ে রয়েছে পাকিস্তানের নাম।

আন্তর্জাতিক আবহাওয়া সংস্থার নিয়ম অনুযায়ী, ভারত মহাসাগর অঞ্চলে কোনো ঘূর্ণিঝড়ের সৃষ্টি হলে তার নামকরণ করে ভারত, বাংলাদেশ, শ্রীলঙ্কা, পাকিস্তান, তাইল্যান্ড, মলদ্বীপ, মায়ানমার এবং ওমান। এই দেশগুলির দেয়া নামের তালিকা থেকেই একটি করে নাম বেছে নেওয়া হয়।

যেমন গতবার ভারতের চেন্নাইতে যে ঘূর্ণিঝড় এসেছিল ওমান তার নাম দিয়েছিল ‘নাদা’। আর এবারের ঝড়ের নাম ‘ভরদা’ দিয়েছে পাকিস্তান। ‘ভরদা’-র অর্থ হলো ‘লাল গোলাপ’।

এর আগেও পাকিস্তান ঘূর্ণিঝড়ের নাম দিয়েছে। যেমন— ফানুস, নীলম, লায়লা, তিতলি, বুলবুল।

You Might Also Like