Uncategorized

নীলফামারীতে গৃহবধূর গলাকাটা লাশ উদ্ধার

নীলফামারীতে সুমতি রানী (৪৫) নামের তিন সন্তানের জননী এক গৃহবধুর গলাকাটা লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। আজ বুধবার বিকালে জেলার জলঢাকা উপজেলার গোলনা ইউনিয়নের দুই নম্বর ওয়ার্ডের পায়রাবন্দ গ্রাম থেকে লাশটি উদ্ধার করে। নিহত সুমতি ওই গ্রামের পরেশ চন্দ্র রায়ের স্ত্রী ও তিন সন্তানের জননী।

নিহতের পারিবারিক সূত্র জানায়, সুমতি বেশ কিছুদিন ধরে মানসিক ভারসাম্যহীন হয়ে পড়েছিল। গতকাল মঙ্গলবার রাতে ঘরে তার মা সহ সুমতি একটি বিছানায় ও জামাই ছোট ছেলেকে নিয়ে অপর বিছানায় ঘুমাচ্ছিলেন।

তার মা জানায়, রাতে ঘুম থেকে উঠে দেখা যায় বিছানায় সুমতি নেই। জামাই ঘুমাচ্ছে। ঘর থেকে বাড়ির কলের পাড়ে গিয়ে দেখি আমার মেয়ে নিজে তার গলায় ছুড়ি চালিয়ে গলা কেটে ফেলছে। চিৎকার করলে লোকজন ছুটে এলেও মেয়েকে বাঁচানো সম্ভব হয়নি। তার মেয়ে আত্মহত্যা করেছে বলে তিনি দাবি করে।

এ ব্যাপারে জলঢাকা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা দিলওয়ার হাসান ইনাম জানান, গলাকাটা লাশটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য জেলার মর্গে পাঠানো হয়েছে। থানায় ইউডি মামলা হয়েছে।