নির্ধারিত সময়ে ঈদ বোনাস দেয়নি অর্ধেক পোশাক কারখানা

সরকারের বেঁধে দেয়া সময়সীমার মধ্যে অর্ধেক গার্মেন্ট কারখানাই শ্রমিকদের উৎসব ভাতা দিতে ব্যর্থ হয়েছে। এতে শ্রমিকদের মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে।

রবিবারের মধ্যে উৎসব ভাতা দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল মালিকরা।

তবে বাংলাদেশ গার্মেন্টস পণ্য রপ্তানিকারক অ্যাসোসিয়েশনের কর্মকর্তারা দাবি করেছেন, নির্ধারিত সময়সীমার মধ্যে শতকরা ৬০ ভাগ কারখানা শ্রমিকদের উৎসব ভাতা প্রদান করেছে। বাকি কারখানাগুলো ৩ অক্টোবরের মধ্যেই পরিশোধ করবে।

কিন্তু শ্রমিক নেতারা দাবি করেছেন, রবিবারের মধ্যে সর্বোচ্চ  ৩০ ভাগ ফ্যাক্টরী উৎসব ভাতা প্রদান করেছে।

মহাখালী, মিরপুর, বাড্ডা, রামপুরা ও মালিবাগ এলাকার গার্মেন্টস শিল্পের শ্রমিকরা বলেছেন, অনেক মালিক এখনো উৎসব ভাতা প্রদানের দিনক্ষণ ঠিক করেনি।

এর আগে ঈদুল আযহা ও দূর্গাপূজাকে সামনে রেখে গত ২১ সেপ্টেম্বর শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী মুজিবুল হক গার্মেন্টস ফ্যাক্টরী মালিক এবং শ্রমিক নেতাদের সাথে বৈঠকের পর জানিয়েছিলেন ২৮ সেপ্টেম্বরের মধ্যে উৎসব ভাতা এবং ২ অক্টোবরের মধ্যে শ্রমিকদের আগস্ট মাসের বেতন পরিশোধ করবে মালিকরা।

ব্রিফিংয়ের সময় বিজিএমইএ এবং বাংলাদেশ নিটওয়ার পণ্য রপ্তানি অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতিদ্বয়ও উপস্থিত ছিলেন।

বিজিএমইএর ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শহীদুল্লাহ আজিম রবিবার সাংবাদিকদের বলেন, ইতোমধ্যে শতকরা ৬০ ভাগ কারখানা শ্রমিকদের উৎসব ভাতা প্রদান করেছে। বাকি কারখানাগুলো আগামী ৩ অক্টোবরের মধ্যেই উৎসব ভাতা পরিশোধ করবে।

তিনি বলেন, ২৮ সেপ্টেম্বরের মধ্যে উৎসব ভাতা এবং ২ অক্টোবরের মধ্যে শ্রমিকদের আগস্ট মাসের বেতন পরিশোধ করতে সরকারের পক্ষ থেকে বিজিএমইএ ও বিকেএমইএকে অনুরোধ করা হয়েছিল। কিন্তু তা করতেই হবে এটা বাধ্যতামূলক নয়। কিছু সংখ্যক মালিক নির্ধারিত সময়ের মধ্যে পরিশোধ করতে পারেনি। কারণ বেশিরভাগ কারখানা এখন অর্ডার সঙ্কটের মধ্যে রয়েছে।

তিনি আরো বলেন, বিজিএমইএ ৬১২টি কারখানা মনিটর করেছে। এর মধ্যে ১৪ কারখানা বোনাস দিতে পারেননি। এরমধ্যে ১৩টিতে বেতন সংক্রান্ত বিষয়ে জটিলতা রয়েছে। এ বিষয়ে বিজিএমইএ কাজ করছে, আজকের মধ্যেই সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে বলে আশা করা যায়।

জাতীয় গার্মেন্টস শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি আমিরুল হক আমিন বলেন, অধিকাংশ মালিক তাদের প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী উৎসব ভাতা দিতে ব্যর্থ হয়েছে। আমরা বিষয়টি মনিটর করছি। দেখা গেছে, নির্ধারিত সময়ের মধ্যে সর্বোচ্চ  ৩০ ভাগ কারখানা উৎসব ভাতা প্রদান করেছে।

তিনি বলেন, যে সব কারখানা নির্ধারিত সময়ের মধ্যে উৎসব ভাতা দিতে ব্যর্থ হয়েছে আমরা সে তাদের তালিকা তৈরি করছি।

গার্মেন্টস শ্রমিক ইউনিয়নের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক কেএম রুহুল আমিন বলেন, মাত্র ২০ শতাংশ মালিক তাদের প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী উৎসব ভাতা প্রদান করেছে। কিছু সংখ্যক কারখানা মালিক জানিয়েছে শুক্র ও শনিবার ব্যাংক বন্ধ থাকার কারণে ভাতা দিতে পারেনি।

অপর একটি ট্রেড ইউনিয়নের নেতা দাবি করেছেন, রাজধানীর কোনো কারখানা্‌ রবিবারের মধ্যে উৎসব ভাতা প্রদান করেনি। রাজধানীতে অন্তত ১০০ কারখানা রয়েছে। অন্যদিকে গাজীপুর ও নারায়নগঞ্জের কোনো কারখানা এখনো আগস্ট মাসের বেতন পরিশোধ করেনি।

এদিকে বকেয়া পরিশোধের দাবিতে তোবা গ্রুপ শ্রমিক সংগ্রাম কমিটি সোমবার বেলা ১১টা থেকে বিজিএমইএ ভবনের সামনে বিক্ষোভ করার ঘোষণা দিয়েছে।

কমিটির আহবায়ক মুশরেফা মিশু বলেন, ঈদুল আযহার আগে শ্রমিকদের বকেয়া পরিশোধ না করলে আমরা কঠোর আন্দোলনে যেতে বাধ্য হব।

You Might Also Like