নিউ ইয়র্ক পুলিশের স্পেশাল টিম থেকে ৫৭ কর্মকর্তার পদত্যাগ

নিউ ইয়র্ক স্ট্যটের বাফেলো শহরে পুলিশের স্পেশাল টিম থেকে একযোগে পদত্যাগ করেছেন ৫৭ জন কর্মকর্তা। তারা বাহিনীর ইমার্জেন্সি রেসপন্স টিমের সদস্য ছিলেন। এর আগে একজন বয়স্ক নাগরিকের সঙ্গে নির্দয় আচরণের দায়ে দুই কর্মকর্তাকে সাময়িক বরখাস্ত করে কর্তৃপক্ষ। ওই বরখাস্তের পরই পদত্যাগের ঘোষণা দেন ৫৭ কর্মকর্তা। তবে তারা শুধু ইমার্জেন্সি রেসপন্স টিম থেকে পদত্যাগ করেছেন, পুলিশ বাহিনী থেকে নয়। শুক্রবার এ বিষয়ে অবগত একটি সূত্র সিএনএন’কে বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

৭৫ বছরের একজন শ্বেতাঙ্গ বৃদ্ধকে ধাক্কা মেরে মাটিতে ফেলে দেওয়ার ঘটনায় ওই দুই কর্মকর্তাকে বরখাস্ত করা হয়েছিল। একজন প্রবীণ নাগরিকের সঙ্গে দুই কর্মকর্তার ন্যাক্কারজনক আচরণের ভিডিও ছড়িয়ে পড়লে দেশজুড়ে তীব্র প্রতিবাদ ও সমালোচনার ঢেউ উঠে। এ ঘটনায় ইতোমধ্যেই তদন্ত প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।

ভিডিওতে দেখা গেছে, ৭৫ বছরের একজন বৃদ্ধ কারফিউ কার্যকরের জন্য দায়িত্বরত পুলিশের দিকে অগ্রসর হলে পুলিশ তাকে ধাক্কা মেরে ফেলে দেয়। পড়ে গিয়ে মাথায় আঘাত পান তিনি।

এতে আরও দেখা যায়, ওই বৃদ্ধ মাটিতে পড়ে আছেন এবং তার কান থেকে গলগল করে রক্ত বেরুচ্ছে। পরে হাসপাতালে নিয়ে গেলে দেখা যায়, তার মাথায় মারাত্মক আঘাত লেগেছে।

নিউ ইয়র্কের গভর্নর অ্যান্ড্রু কুমো পুলিশের আক্রমণাত্মক আচরণের সমালোচনা করেছেন। এক টুইট বার্তায় বাফেলোর ঘটনাকে পুরোপুরি অযৌক্তিক এবং খুবই ন্যাক্কারজনক হিসেবে বর্ণনা করেছেন তিনি।

বাফেলো পুলিশ বিভাগ থেকে প্রথমে যে বিবৃতি দেওয়া হয়েছিল তাতে বলা হয়, ওই ব্যক্তি হোঁচট খান এবং ‘বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে ধ্বস্তাধ্বস্তির সময়’ তিনি মাটিতে পড়ে যান। এই বিবৃতি সোশ্যাল মিডিয়ায় এ ঘটনা নিয়ে ক্ষোভের মাত্রা আরও বেড়ে যায় । পুলিশের একজন মুখপাত্র জেফ রিনোল্ডো বলেন, যে অফিসাররা ওই বিবৃতি দিয়েছিলেন, তারা ঘটনার সঙ্গে প্রত্যক্ষভাবে জড়িত ছিলেন না।

কর্মকর্তাদের পদত্যাগ নিয়ে কথা বলেছেন বাফেলো পুলিশ বেনেভোলেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি জন ইভান্স। তিনি বলেন, শুধু নির্দেশ পালনের দায়ে বাহিনীর দুই কর্মকর্তার সঙ্গে যে আচরণ করা হয়েছে তার প্রতিবাদে ৫৭ জন কর্মকর্তা পদত্যাগ করেছেন।

পুলিশি নৃশংসতার শিকার ৭৫ বছরের ওই বৃদ্ধের পরিচয় নিশ্চিত করেছে সিএনএন। গভর্নরের দফতরের বরাত দিয়ে সংবাদমাধ্যমটি জানিয়েছে, ওই বৃদ্ধের নাম মার্টিন গাগিনো। গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল।

মার্টিন গাগিনো দীর্ঘদিন ধরেই তিনি শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভে অংশ নিয়ে আসছেন এবং মানবাধিকারের ব্যাপারে তিনি একজন বলিষ্ঠ কণ্ঠস্বর বলে জানা গেছে। পরবর্তী যে কোনও বিক্ষোভ কর্মসূচি শান্তিপূর্ণভাবে পালনের আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

বাফেলো’র মেয়র বাইরন ব্রাউন বলেছেন, তিনি চান বরখাস্তকৃত দুই কর্মকর্তার ব্যাপারে যেন যথাযথ প্রক্রিয়া অনুসরণ করা হয়। তিনি বলেন, ‘আমি তাদের চাকরিচ্যুত করতে বলছি না।’ গুরুতর আহত ৭৫ বছরের বৃদ্ধের ব্যাপারে মেয়র বলেন, তাকে বহুবার চলে যেতে বলা হয়েছিল।

পুলিশ সদস্যদেরও সতর্কতা অবলম্বন, জনগণের সুরক্ষা দেওয়া এবং কমন সেন্স বা সাধারণ জ্ঞান ব্যবহারের তাগিদ দিয়েছেন বাফেলোর মেয়র।

You Might Also Like