`নিউইয়র্কে চিকিৎসা সামগ্রীর অভাবে করোনা মহামারি পরিস্থিতি আরও খারাপ রূপ নেবে’

চিকিৎসা সামগ্রীর অভাবে নিউইয়র্কে করোনাভাইরাস মহামারি আরও খারাপ রূপ নেবে বলে সতর্ক করে দিয়েছেন মেয়র ব্ল্যাসিও। তিনি বলেন, আগামী ১০ দিনের মধ্যেই এসবের মারাত্মক ঘাটতি দেখা দিতে পারে। আমরা যদি আরও ভেন্টিলেটর না পাই তাহলে লোকজন মরতে শুরু করবে।

বর্তমানে ইউইয়র্ক করোনাভাইরাসের জন্য যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রে পরিণত হয়েছে। সারা দেশে যতো মানুষ আক্রান্ত হয়েছে তার প্রায় অর্ধেকই এই রাজ্যের।

বিবিসি তার রিপোর্টে জানায়, যুক্তরাষ্ট্রে এখন পর্যন্ত ৩১ হাজারেরও বেশি মানুষ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন এবং মারা গেছেন ৪০০ জনের মতো। সারা বিশ্বে আক্রান্তদের তুলনায় নিউইয়র্কের আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা পাঁচ শতাংশ।

শনিবার নিউইয়র্ক রাজ্যের গভর্নর এন্ড্রু কোমো জানিয়েছেন সেখানে ১৫ হাজারেরও বেশি মানুষ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। মাত্র একদিনেই এই সংখ্যা বেড়েছে চার হাজার।

মেয়র ডি ব্ল্যাসিও বলেন, আমেরিকানের সত্য জানার অধিকার আছে। পরিস্থিতি ক্রমাগত খারাপ হচ্ছে এবং আসল কথা হচ্ছে এপ্রিল ও মে মাসে অবস্থা আরও খারাপ হবে। এই পরিস্থিতিতে করোনাভাইরাস মোকাবেলায় প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প একটি ঘোষণা অনুমোদন করেছেন। যার ফলে নিউইয়র্ক রাজ্য কেন্দ্রীয় সরকারের কাছ থেকে কয়েকশো কোটি ডলারের সহায়তা পাবে।

মেয়র ডি ব্ল্যাসিও ট্রাম্প প্রশাসনের সমালোচনা করে বলেন, ভাইরাসটি মোকাবেলায় যেসব পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে তা যথেষ্ট নয়। আমাকে বলতেই হবে, প্রেসিডেন্ট যদি ব্যবস্থা না নেন। তাহলে লোকজনকে মরতে হবে।  তারা হয়তো বেঁচে থাকতে পারবে না। ব্ল্যাসিও।

তিনি বলেন, আগামী ১০ দিনের মধ্যেই এসবের মারাত্মক ঘাটতি দেখা দিতে পারে। আমরা যদি আরও ভেন্টিলেটর না পাই তাহলে লোকজন মরতে শুরু করবে।

বর্তমানে ইউইয়র্ক করোনাভাইরাসের জন্য যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রে পরিণত হয়েছে। সারা দেশে যতো মানুষ আক্রান্ত হয়েছে তার প্রায় অর্ধেকই এই রাজ্যের।

বিবিসি তার রিপোর্টে জানায়, যুক্তরাষ্ট্রে এখন পর্যন্ত ৩১ হাজারেরও বেশি মানুষ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন এবং মারা গেছেন ৪০০ জনের মতো। সারা বিশ্বে আক্রান্তদের তুলনায় নিউইয়র্কের আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা পাঁচ শতাংশ।

শনিবার নিউইয়র্ক রাজ্যের গভর্নর এন্ড্রু কোমো জানিয়েছেন সেখানে ১৫ হাজারেরও বেশি মানুষ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। মাত্র একদিনেই এই সংখ্যা বেড়েছে চার হাজার।

মেয়র ডি ব্ল্যাসিও বলেন, আমেরিকানের সত্য জানার অধিকার আছে। পরিস্থিতি ক্রমাগত খারাপ হচ্ছে এবং আসল কথা হচ্ছে এপ্রিল ও মে মাসে অবস্থা আরও খারাপ হবে।

এই পরিস্থিতিতে করোনাভাইরাস মোকাবেলায় প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প একটি ঘোষণা অনুমোদন করেছেন। যার ফলে নিউইয়র্ক রাজ্য কেন্দ্রীয় সরকারের কাছ থেকে কয়েকশো কোটি ডলারের সহায়তা পাবে।

মেয়র ডি ব্ল্যাসিও ট্রাম্প প্রশাসনের সমালোচনা করে বলেন, ভাইরাসটি মোকাবেলায় যেসব পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে তা যথেষ্ট নয়। আমাকে বলতেই হবে, প্রেসিডেন্ট যদি ব্যবস্থা না নেন। তাহলে লোকজনকে মরতে হবে।  তারা হয়তো বেঁচে থাকতে পারবে না।

You Might Also Like