নাফ নদী থেকে ৬ বাংলাদেশি জেলেকে ধরে নিয়ে গেছে মিয়ানমারের পুলিশ

কক্সবাজার জেলার দক্ষিণ প্রান্তে আরাকান সীমান্তে অবস্থিত নাফ নদীতে মাছ শিকার করতে যাওয়া ছয় বাংলাদেশি জেলেকে ধরে নিয়ে গেছে মিয়ানমারের সীমান্তরক্ষী বাহিনী বর্ডার গার্ড পুলিশ (বিজিপি)।

আজ (সোমবার) বেলা তিনটার দিকে আট জেলে দুটি নৌকা নিয়ে টেকনাফ পৌরসভার জালিয়া পাড়া সংলগ্ন নাফ নদীতে মাছ শিকার করতে যান। এ সময় বিজিপি ছয়জনকে ধরে নিয়ে যাওয়া যায়। ধৃত ব্যক্তিরা হলেন- মোহাম্মদ হোসেন (৩০), মোহাম্মদ ফারুক (৩৭), আবদুর করিম (২৮), সাদেক হোসেন (১৮), আক্তার ফারুক (১৬) ও মোহাম্মদ সাদেক (১৭)। তাদের সবার বাড়ি কক্সবাজারের টেকনাফ পৌরসভার চৌধুরীপাড়া এলাকায়।

বিজিপির কবল থেকে পালিয়ে আসা নুর মোহাম্মদ (২৫) ও আবদুল আমিন (২০) জানান, মাছ ধরার সময় হঠাৎ করে বিজিপি ধাওয়া করলে তাঁরা দুজন নদীতে ঝাঁপ দেন। তবে দুটি নৌকায় থাকা অন্য ছয়জনকে ধরে ফেলে বিজিপি। অস্ত্রের মুখে অপহরণ করে ওই ছয়জনকে মিয়ানমারের দিকে নিয়ে যাওয়া হয়। এসময় আবদুল আজিজ নামের এক জেলে তাদের দুজনকে উদ্ধার করে নিয়ে আসেন।

এ বিষয়ে বিজিবির টেকনাফ-২ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল আবুজার আল জাহিদ সাংবাদিকদের জানান, আটক জেলের সংখ্যা চারজন বলে তিনি শুনেছেন। জেলেরা মিয়ানারের জলসীমানায় মাছ শিকার করতে গেলে এ ঘটনা ঘটে। বিষয়টি নিয়ে মিয়ানমারের বিজিপির সঙ্গে যোগাযোগ করা হচ্ছে বলেও জানান তিনি।

টেকনাফ ২ বিজিবি ব্যাটালিয়নের উপ-অধিনায়ক মেজর আবু রাসেল ছিদ্দিকী বলেন, রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশ ঠেকাতে নাফ নদীতে মাছ শিকার সম্পূর্ণভাবে নিষিদ্ধ করার পরও জেলেরা সেখানে মাছ শিকার করতে যাওয়ায় এ ঘটনা ঘটেছে।

এর আগে নাফ নদী থেকে গত ৩-১১ নভেম্বরের মধ্যে ১২ জন ও ৭ ডিসেম্বর দুই জেলেকে অস্ত্রের মুখে ধরে নিয়ে যায় বিজিপি। তাদের এখনও ফেরত দেয়নি মিয়ানমার কর্তৃপক্ষ।

You Might Also Like