দ. চীন সাগরে গোয়েন্দা বিমানের নজরদারির সিদ্ধান্ত নিয়েছে আমেরিকা

মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী অ্যাশ্টন কার্টার বলেছেন, দক্ষিণ চীন সাগরে গোয়েন্দা বিমানের নজরদারির সিদ্ধান্ত নিয়েছে তার দেশ। এ জন্য সিঙ্গাপুরে মার্কিন অত্যাধুনিক গোয়েন্দা বিমান ‘পোসেইডোন’ মোতায়েনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে পেন্টাগন।এ বিমান সিঙ্গাপুরে মোতায়েনের বিষয়ে দেশটির সঙ্গে ওয়াশিংটনের চুক্তি হয়েছে। বর্ধিত প্রতিরক্ষা সহযোগিতা চুক্তি বা ডিসিএ’র আওতায় এ বিমান মোতায়েন করা হবে।

আমেরিকা সফররত সিঙ্গাপুরের প্রতিরক্ষামন্ত্রী এনজি ইং হেন’র সঙ্গে দেয়া এক যৌথ বিবৃতিতে এ কথা জানিয়েছেন কার্টার। এতে আরো দাবি করা হয়েছে, সন্ত্রাসবাদ বিরোধী তৎপরতা, জলদস্যুদের বিরুদ্ধে লড়াই এবং দুর্যোগকালীন ত্রাণ তৎপরতার ক্ষেত্রে সহযোগিতার জন্য গোয়েন্দা বিমান মোতায়েন করা হবে।

বোয়িং’র তৈরি পোসেইডোন বিমান চলতি মাসের ৭ থেকে ১৪ তারিখের মধ্যে মোতায়েন করা হবে। জাপান এবং ফিলিপাইন থেকে এ বিমান দিয়ে অনেক দিন ধরেই নজরদারি চালিয়ে যাচ্ছে আমেরিকা। এ ছাড়া, মালেয়েশিয়ার কাছাকাছি মার্কিন বিমান ঘাঁটিগুলো থেকেও একই তৎপরতা চালানো হচ্ছে।

ডিসিএ অনুযায়ী সিঙ্গাপুর বিমানক্ষেত্রকে কৌশলগত কাজে ব্যবহার করতে পারবে মার্কিন নৌবাহিনী। বিতর্কিত দক্ষিণ চীন সাগরে বেইজিং’র কথিত সামরিক তৎপরতার ওপর নজর রাখার কৌশলগত কাজে এ বিমানক্ষেত্র ব্যবহার করা যাবে।

You Might Also Like