দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণ, শিক্ষক আটক

কিশোরগঞ্জের কটিয়াদী উপজেলায় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এক ছাত্রী (১০) ধর্ষণের শিকার হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে স্থানীয় মাদ্রাসার এক শিক্ষককে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে এলাকাবাসী।
সোমবার সকালে উপজেলার মুমুরদিয়া ইউনিয়নে ঘটনাটি ঘটে।
ধর্ষণের শিকার ছাত্রীর অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাকে কিশোরগঞ্জ ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
ওই ছাত্রীর মা জানান, তার মেয়ে একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দ্বিতীয় শ্রেণিতে পড়ে। সেই সঙ্গে পবিত্র কোরআন শরিফ পড়তে প্রতিদিন সকালে তার মেয়ে গ্রামের একটি মাদ্রাসায় যায়।
তিনি জানান, সোমবার সকাল ৯টায় মেয়ে মাদ্রাসা থেকে কাঁদতে কাঁদতে বাড়ি ফেরে। কারণ জানতে চাইলে সে জানায়, মাদ্রাসা ছুটির পর শিক্ষক জয়নাল মিয়া অন্য শিক্ষার্থীদের বিদায় দিলেও তাকে কৌশলে আটকে রাখে। পরে একটি কক্ষে নিয়ে মুখ রুমাল দিয়ে বেঁধে পাশবিক নির্যাতন করে।
এই ঘটনা জানতে পেরে স্থানীয় লোকজন ওই শিক্ষককে তার বাড়ি থেকে আটক করে। পরে গণপিটুনি দিয়ে বেঁধে রাখে। খবর পেয়ে পুলিশ এসে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।
আহত ছাত্রীকে প্রথমে কটিয়াদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও পরে কিশোরগঞ্জ জেলা হাসপাতালে পাঠানো হয়। তার অবস্থা গুরুতর বলে জানিয়েছেন কর্তব্যরত চিকিৎসক মঈন উদ্দিন বাপ্পী।
কটিয়াদী থানার ওসি হেদায়েতুল ইসলাম ভূঁইয়া ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, এ ঘটনায় এখনো কোনো মামলা হয়নি।

You Might Also Like