দুর্নীতির দায়ে কাস্টমস কর্মকর্তাকে বরখাস্ত

লন্ডন ও দুবাইয়ে ব্যবসা পরিচালনাসহ দুর্নীতির অভিযোগে কাস্টমস কমিশনার এম হাফিজুর রহমানকে চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার অর্থমন্ত্রণালয়ের সচিব মো. গোলাম হোসেন সাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে বলে জানানো হয়।

কাস্টমস কমিশনার এম হাফিজুর রহমানকে সাময়িক বরখাস্তের প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, অবৈধ সম্পদ অর্জনসহ বিভিন্ন অনৈতিক কর্মকান্ডের খবর সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত হওয়ার প্রেক্ষিতে গঠিত তদন্ত কমিটি তার বিরুদ্ধে “বেস্ট লজিস্টিক লিঃ” নামে ফ্রেইট ফরোয়ার্ডিং প্রতিষ্ঠানের ৭৫ শতাংশ মালিকানা, অবৈধ অর্থে একাধিক প্লাট ক্রয়, সরকারি কর্মকর্তা হওয়া সত্ত্বেও দুবাই ও লন্ডনে ব্যবসা পরিচালনা এবং জ্ঞাত আয় বহির্ভূত অর্থে এফডিআর ও সঞ্চয়পত্র ক্রয় সম্পর্কিত অভিযোগের প্রমাণ পায়।

এর প্ররিপ্রেক্ষিতে সরকারি কর্মচারী শৃংখলা ও আপিল বিধিমালা ১৯৮৫-এর বিধি ১১ বিধানমতে কাস্টমস কমিশনার এম হাফিজুর রহমানকে চাকরি থেকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।

প্রসঙ্গত, কাস্টমস কমিশনার এম হাফিজুর রহমানের বিরুদ্ধে দুদক তদন্ত করছে। তার নামে দেশে বিদেশে চারটি ব্যাংকে ১৪টি ব্যাংক হিসাবের সন্ধান পায় দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। নামে-বেনামে তার রয়েছে কোটি কোটি টাকার সম্পদ।

দুদকের উপপরিচালক মাহমুদ হাসান কমিশনার হাফিজুর রহমানের বিরুদ্ধে অভিযোগ অনুসন্ধান করে তার নামে চার ব্যাংকে ১৪টি হিসাব ও অন্যান্য সম্পদের তথ্য পায়।
হিসাবগুলোতে তার নাম এম হাফিজুর রহমান, এমডি হাফিজুর রহমান, হাফিজুর রহমান, এম রহমান, এমএইচ রহমান উল্লেখ করা হয়েছে। যৌথ হিসাবগুলোতে স্ত্রী মোরশেদা জাহানসহ একাধিক ব্যক্তির নাম উল্লেখ আছে।

You Might Also Like